default-image

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে ঘরে আগুন লেগে একই পরিবারের চারজন মারা গেছেন। তাঁদের মধ্যে শারীরিক প্রতিবন্ধী দুই শিশু-কিশোরও রয়েছে। শুক্রবার রাত নয়টায় সদর ইউনিয়নের কুমারটেক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
মৃত ব্যক্তিরা হলেন কুমারটেক এলাকার মো. মাসুম (৪০), তাঁর স্ত্রী সীমা আক্তার (৩৩), ছেলে রাসেল মিয়া (১৭) ও রহমত উল্লাহ (১০)।

পূর্বাচল উপশহর মাল্টিপারপাস ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা উদ্দীপন ভক্ত প্রথম আলোকে জানান, মাসুমের বাড়ির ওপর দিয়ে বিদ্যুৎ সঞ্চালনের দুটি লাইন গেছে।

শুক্রবার রাত নয়টার দিকে একটি লাইন ছিঁড়ে অপরটির ওপর পড়লে আগুন ধরে যায়। এ আগুন মাসুমের টিনের ছাউনির ঘরে লাগে। এতে ঘরের মধ্যে থাকা ওই চারজন পুড়ে যান। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা মাসুম, রাসেল ও রহমতউল্লাহর পোড়া লাশ উদ্ধার করেন। সীমাকেও দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে তিনি মারা যান।

বিজ্ঞাপন

উদ্দীপন আরও জানান, রাসেল ও রহমত উল্লাহ শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী। তবে আগুনে পুড়ে নাকি আগেই বিদ্যুতায়িত হয়ে সবার মৃত্যু হয়েছে, তা তিনি নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না।

ওই ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিনুল কাদির। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ চারটি নারায়ণগঞ্জ সদর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পর থেকে এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ।

ঘটনায় বিদ্যুৎ কোম্পানির কোনো দায় আছে কি না, জানতে চাইলে ওসি বলেন, ‌এ বিষয়ে এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না। তদন্তে কারও কোনো অবহেলা উঠে এলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন