বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সোমবার ভোরে অন্য দিনের মতো হাওরে জাল নিয়ে মাছ ধরতে যান শামসুল হক। সকাল নয়টার দিকে বাড়িতে এসে দেখেন, স্ত্রী আঁখি আক্তার, দুই ছেলে সিয়াম মিয়া (৭) ও রবিউল মিয়া (৫) ঘরের ভেতর যন্ত্রণায় ছটফট করছে। এ সময় ছেলে সিয়াম জানায়, তার মা প্রথমে তাদের বিষ খাইয়েছেন।

পরে নিজে বিষপান করেন। তখন শামসুল হক প্রতিবেশীদের ডেকে এনে তাদের দ্রুত শাল্লা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। আঁখি আক্তারের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন। এরপর তাঁকে স্পিডবোটে করে সিলেটের উদ্দেশে রওনা হলে দিরাই উপজেলা সদরে আসার পর তিনি মারা যান। শিশুদের অবস্থা আশঙ্কামুক্ত বলে জানা গেছে।

শাল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম জানান, আঁখি আক্তার ইঁদুর মারার বিষ নিজে খান। এর আগে দুই সন্তানকে খাওয়ান। কী কারণে তিনি এমনটি করেছেন, পুলিশ সেটি তদন্ত করে দেখছে। আঁখি আক্তারের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন