বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও নিহত শিশুর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ১০-১৫ দিন আগে শিশু সুমনের সঙ্গে শরিফ মিয়ার কথা-কাটাকাটি হয়েছিল। একপর্যায়ে শরিফ দা নিয়ে সুমনের দিকে তেড়ে আসেন। ওই ঘটনায় শরিফের বাবা শাহ্জাহান ক্ষমা চেয়েছিলেন। তবে শরিফ মনের মধ্যে রাগ পুষে রেখেছিলেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে সুমনকে বিস্কুট খাওয়ানোর কথা বলে উপজেলার কোদালিয়া ফেরিঘাটের দিকে নিয়ে যান সুমন। সেখানে দা দিয়ে কুপিয়ে সুমনকে হত্যা করেন তিনি। ওই সময় এলাকাবাসী শরিফকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন। মঙ্গলবার রাতে সুমনের বাবা বাদী হয়ে শরিফকে আসামি করে থানায় হত্যা মামলা করেন।

হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহীনুজ্জামান খান প্রথম আলোকে বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সুমনকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন শরিফ। হত্যায় ব্যবহৃত দা উদ্ধার করা হয়েছে। আজ বুধবার গ্রেপ্তার শরিফকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন