default-image

বুড়িগঙ্গা নদীতে বরিশালগামী যাত্রীবাহী লঞ্চের সঙ্গে চাঁদপুর থেকে ছেড়ে আসা সদরঘাটগামী লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে বেশ কয়েকজন যাত্রী ছিটকে পানিতে পড়েন। আহত হয়েছেন অনেকে। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা পোস্তগোলা এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীতে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

সদরঘাট নৌ থানার পুলিশের উপপরিদর্শক মো. শহীদ বলেন, বরিশালগামী এমভি সুন্দরবন-১০ লঞ্চের সঙ্গে চাঁদপুর থেকে আসা সদরঘাটগামী এমভি ইমাম হাসান-৭ লঞ্চের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে লঞ্চের বেশ কয়েকজন যাত্রী আহত হয়েছেন। তবে সংঘর্ষে সুন্দরবন লঞ্চের তেমন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। সংঘর্ষের পর লঞ্চটি গন্তব্যের দিকে রওনা দিয়েছে। কিন্তু এমভি ইমাম হাসান লঞ্চটি ছোট হওয়ায় লঞ্চের সম্মুখভাগ কিছুটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

গেন্ডারিয়া ঘাটের মাঝি সালান মিয়া বলেন, রাতে যাত্রী নিয়ে পোস্তগোলা শ্মশানঘাট যাচ্ছিলেন তিনি। নৌকাটি মাঝনদীতে আসা মাত্রই হঠাৎ বিকট শব্দ শুনতে পান। পরে দেখেন পোস্তগোলা সেতুর কাছে দুই লঞ্চের সংঘর্ষে হয়েছে। এতে লঞ্চে থাকা কয়েকজন যাত্রী ছিটকে নদীতে পড়ে যান। যাত্রীদের চিৎকারে তিনি ও স্থানীয় লোকজন উদ্ধারে করতে যান।

বিজ্ঞাপন

সুন্দরবন লঞ্চের পরিচালক ঝন্টু মিয়া বলেন, তাঁদের লঞ্চটি বরিশাল যাওয়ার পথে এমভি ইমাম হাসান লঞ্চের সঙ্গে সামান্য ধাক্কা লেগেছে। এতে বড় ধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। আজ সকালে তাঁদের লঞ্চটি যাত্রী নিয়ে নিরাপদে বরিশালে পৌঁছেছে।
সংঘর্ষে লঞ্চের সামনের অংশে কিছুটা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানান এমভি ইমাম হাসান লঞ্চের পরিচালক ইমাম হাসান। বলেন, সংঘর্ষের সময় কয়েকজন যাত্রী ছিটকে নদীতে পড়ে যান। পরে তাঁদের উদ্ধার করে ট্রলার করে নিরাপদে সদরঘাট টার্মিনালে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।

নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের ঢাকা নদীবন্দরের যুগ্ম পরিচালক জয়নাল আবেদীন বলেন, পোস্তগোলা সেতুর নিচে একটি চ্যানেল বন্ধ থাকায় অন্য একটি সরু চ্যানেল দিয়ে লঞ্চ দুটি চলাচলকালে দুর্ঘটনাটি ঘটে। তবে তেমন কোনো ক্ষয়ক্ষতির ঘটনা ঘটেনি। এ ঘটনায় দুই লঞ্চের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন