বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, একপর্যায়ে রিপন রাজবংশী গ্রামের মাতবরদের ডাকতে যান। এ সময় সুশীল পালের ছেলে অরি পাল ক্ষিপ্ত হয়ে সাধন রাজবংশীর গলা চেপে ধরেন, যা দেখে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে সাধনকে ছাড়িয়ে নেয়। তবে এরই মধ্যে সাধন মাটিতে লুটিয়ে পড়ে মারা যান। ঘটনার পর থেকে অরি পাল পলাতক রয়েছেন। পরে দুপুরে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

বহুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. আবদুস সামাদ সিকদার বলেন, বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনে ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়েছিল। পরে সাধন রাজবংশীকে গলা চেপে ধরলে তিনি মারা যান বলে জানতে পেরেছেন।

মির্জাপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোশারফ হোসেন বলেন, সাধন রাজবংশীর লাশ পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ টাঙ্গাইলের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে পাঠানো হবে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন