default-image

বাগেরহাট শহরের একটি বেকারির জ্বালানিঘরে অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ হয়ে আজিম শেখ (১৬) নামের এক কর্মচারীর মৃত্যু হয়েছে। শনিবার রাত ১০টার দিকে শহরের কচুয়াপট্টি এলাকায় রমেশ সাহার মালিকানাধীন সুমন বেকারিতে ওই ঘটনা ঘটে। প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টার পর রাত ১২টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

আগুন লাগার পর থেকে আজিম নিখোঁজ ছিল। আজ রোববার সকালে আগুন লাগা কক্ষে জ্বালানি হিসেবে রাখা তুষের স্তূপের নিচ থেকে তাঁর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তাঁকে উদ্ধারের পর বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে পুলিশ দুপুরে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আজিম বাগেরহাট সদর উপজেলার বেমরতা ইউনিয়নের কোন্ডলা গ্রামের এমদাদ শেখের ছেলে।

বেকারির মালিকপক্ষের বরাতে বাগেরহাট সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে এম আজিজুল ইসলাম বলেন, গতকাল শনিবার রাত ১০টার দিকে সুমন বেকারির জ্বালানিঘরে আগুন লাগে। একতলা ভবনের ওপরে টিনের বেড়া ও শেড দিয়ে করা দোতলার ঘরটি থেকে মুহূর্তের মধ্যে আগুনের শিখা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। পরে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিটসহ স্থানীয় লোকজন গিয়ে প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনে। শনিবার রাতে খাবার খেয়ে ওই কিশোর কারখানার জ্বালানি রাখার ঘরের পাশে ঘুমিয়ে ছিল। আগুন লাগার পর সে আর বের হতে না পারায় দগ্ধ হয়ে মারা গেছে।

বাগেরহাট ফায়ার সার্ভিসের জ্যেষ্ঠ স্টেশন কর্মকর্তা (এসও) মো. শাহজাহান সিরাজ বলেন, শহরের ঘিঞ্জি সড়কের কারণে দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে এবং কাছাকাছি পানির উৎস না থাকায় আগুন নেভাতে বেগ পেতে হয়। ঘরটিতে থাকা বৈদ্যুতিক মোটরের শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে থাকতে পারে বলে ফায়ার সার্ভিসের ধারণা।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন