বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

আওয়ামী লীগের প্রার্থী ফারুক হোসেন বলেন, ‘আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ইদ্রিস সরদার আমার জনপ্রিয়তায় দিশেহারা হয়ে বিএনপি-জামায়াতের লোকজন ও সন্ত্রাসীদের নিয়ে আমার নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে আমি এ ঘটনার দ্রুত বিচার দাবি করছি।’

এ বিষয়ে ইদ্রিস সরদার বলেন, ‘আমাকে ফাঁসানোর জন্য বেশ কিছুদিন ধরেই আমার নামে মিথ্যা মামলা দেওয়ার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে ওই এলাকায় আমার কোনো কর্মী পোস্টার লাগাতে ও প্রচার করতেই যায় না। ওরা নিজেরাই ঘটনা ঘটিয়ে আমার কর্মীদের ওপর দোষ চাপাচ্ছে। এটা আসলে পুরোপুরি সাজানো নাটক।’

খবর পেয়ে বেড়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অবিস্ফোরিত ককটেলসদৃশ তিনটি বস্তু উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। বেড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অরবিন্দ সরকার বলেন, উদ্ধার করা বস্তুগুলো আসলেই ককটেল কি না, তা পরীক্ষা না করে বলা যাচ্ছে না। এ ঘটনায় আজ রোববার দুপুর পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ আসেনি।

৫ জানুয়ারি বেড়া উপজেলার নয়টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নয়টি ইউপির মধ্যে পুরানভারেঙ্গা ও মাশুন্দিয়া ইউপিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দুজন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন