বৈরী আবহাওয়ায় বরিশালে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

বিজ্ঞাপন
default-image

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে দক্ষিণ উপকূলে বৈরী আবহাওয়ার কারণে বরিশালের অভ্যন্তরীণ সব নৌপথে লঞ্চ চলাচল সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) আজ বুধবার সকালে লঞ্চ চলাচল বন্ধের এই নির্দেশ দেয়।

লঘুচাপের কারণে সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর এবং নৌবন্দরে ২ নম্বর সতকর্তা সংকেত দেখানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিআইডব্লিউটিএ বরিশালের নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী পরিচালক শহিদুল ইসলাম লঞ্চ চলাচল বন্ধের তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

শহিদুল ইসলাম বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে দেশের নদীবন্দরে ২ নম্বর সতর্কতা সংকেত জারি করা হয়েছে। এতে উপকূলে বৈরী আবহাওয়া বিরাজ করছে। কর্তৃপক্ষের পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকবে।

এর আগে ২২ আগস্ট বৈরী আবহাওয়ার কারণে বরিশালের অভ্যন্তরীণ নৌপথে সব লঞ্চ চলাচল সাময়িক বন্ধ রাখা হয়।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এদিকে গতকাল মঙ্গলবার রাত থেকে উপকূলে আবহাওয়া আবারও খারাপ হতে শুরু করে। রাতভর দমকা বাতাসের সঙ্গে চলে বৃষ্টিপাত। আজ সকালেও তা অব্যাহত রয়েছে।

আবহাওয়া বিভাগ বলছে, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত লঘুচাপটি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করছে। এর প্রভাবে বন্দরগুলোর ওপর দিয়ে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ জন্য সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর এবং নৌবন্দরে ২ নম্বর সতকর্তা সংকেত দেখানো হয়েছে। লঘুচাপের প্রভাবে উপকূলের জেলাগুলোর নদ-নদীতে এক থেকে দুই ফুটের বেশি উচ্চতার জোয়ার অথবা জলোচ্ছ্বাস হতে পারে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

১৬ আগস্ট থেকে বরিশালসহ দক্ষিণ উপকূলে বৈরী আবহাওয়া শুরু হয়। সাগরে লঘুচাপের প্রভাবে দক্ষিণ উপকূলের নদ-নদীতে ২৩ আগস্ট পর্যন্ত অধিক উচ্চতার জোয়ারে শহর-বন্দর, লোকালয়, মানুষের বসতঘর ভেসে যায়। ফসলের খেত ও মাছের ঘের ভেসে গিয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এর জের কাটতে না কাটতেই গতকাল রাত থেকে আবারও বৈরী আবহাওয়ার কবলে পড়েছে উপকূল।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন