সড়ক দুর্ঘটনা
প্রতীকী ছবি

সাতক্ষীরার তালায় ফেনসিডিল বহনকারী একটি ব্যক্তিগত গাড়ির ধাক্কায় মোটরসাইকেলের চালক নিহত হয়েছেন। গত শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের মদনপুর বাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এদিকে ওই ব্যক্তিগত গাড়ি থেকে ৬ বোতল ফেনসিডিলসহ ২ লাখ ৮৫ হাজার টাকা ও স্বর্ণালংকার উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে ওই ব্যক্তিগত গাড়িতে থাকা পুলিশ কনস্টেবল উত্তম দাস (২৬) ও গাড়িচালক লুৎফর রহমানকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় শনিবার পুলিশ কনস্টেবল উত্তম দাসকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ওই মোটরসাইকেলচালকের নাম আবদুল গফুর মাহমুদ (৬৫)। তিনি উপজেলার মদনপুর গ্রামের নেহাল উদ্দিন মাহমুদের ছেলে। গতকাল সন্ধ্যায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।

খুলনার চুকনগর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মেহেদী হাসান জানান, আবদুল গফুর মাহমুদ মদনপুর বাজার এলাকা থেকে মোটরসাইকেলে করে বাড়িতে যাচ্ছিলেন। এ সময় খুলনাগামী ব্যক্তিগত গাড়িটি আবদুল গফুরের মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দিলে তিনি মাথায় গুরুতর আঘাত পান। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা চড়াও হয়ে সড়ক অবরোধ করে রাখেন। খবর পেয়ে হাইওয়ে থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং আহত গফুরকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

এ সময় স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে ব্যক্তিগত গাড়িটি তল্লাশি করে ৬ বোতল ফেনসিডিল, ২ লাখ ৮৫ হাজার টাকা ও স্বর্ণালংকার উদ্ধার করে পুলিশ।
এ ঘটনায় গতকাল রাতেই তালা থানার ওসি মো. মেহেদী হাসান বাদী হয়ে তালা থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় পুলিশ কনস্টেবল উত্তম দাস ও গাড়িচালক লুৎফর রহমানকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

জানতে চাইলে পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, সাতক্ষীরা আদালতে কর্মরত কনস্টেবল উত্তম দাসকে গ্রেপ্তারের পাশাপাশি আজ তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বিষয়টি পুলিশের পক্ষ থেকে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।