বিজ্ঞাপন

ভোলা-২ আসনের সাংসদের একান্ত সহকারী মহিন আহমেদ বলেন, সম্প্রতি ইদ্রিস মিয়াকে নিয়ে প্রথম আলোতে প্রকাশিত খবরটি সাংসদের নজরে আসে। সাংসদ তাঁকে (একান্ত সহকারীকে) গত বৃহস্পতিবার ইদ্রিস মিয়ার বাড়ি যাওয়ার নির্দেশ দেন। ইদ্রিস মিয়া ও তাঁর স্ত্রী হাজেরা বিবির যাবতীয় খোঁজখবর নেন। রিকশা চালানো বাদ দিয়ে আরামে বসে একটি ব্যবসা করতে পারেন, সাংসদ সেই ব্যবস্থা করেছেন। ইদ্রিস মিয়াকে নতুন পোশাক কিনে দিয়েছেন। ইদ্রিস মিয়ার স্ত্রী বিবি হাজেরার জন্য নতুন শাড়ি কিনে দিয়েছেন। ব্যবসা করার জন্য দিয়েছেন নগদ ৫০ হাজার টাকা। একান্ত সহকারী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর উপহার থেকে ইদ্রিস মিয়াকে একটি ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন সাংসদ।
সাংসদ আলী আজম বলেন, দরিদ্রতা আর প্রতিকূল পরিবেশের সঙ্গে লড়াই করে বেঁচে থাকা রিকশাচালক ইদ্রিস মিয়াকে (৮৩) আর কষ্ট করে রিকশার প্যাডেল ঘোরাতে হবে না। স্বাভাবিকভাবে বেঁচে থাকতে যতটুকু দরকার, ততটুকুই ব্যবস্থা করা হবে। তাঁর বাসস্থান ও বিনা মূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন