ভুক্তভোগী ব্যক্তির নাম আমিনুল ইসলাম। নগরের চাঁদমারী এলাকার বাসিন্দা তিনি। আমিনুল ইসলাম বলেন, ঘটনার সময় তিনি নগরের সদর রোডে অগ্রণী ব্যাংকের শাখা থেকে পাঁচ লাখ টাকা তুলে একটি ব্যাগে ভরে সিঁড়ি দিয়ে নিচে নামছিলেন। এ সময় তাঁর চোখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেওয়া হয়। কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাঁর হাতে থাকা টাকাভর্তি ব্যাগটি ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন আটক ওই যুবক। এ সময় তিনি এক হাত দিয়ে ব্যাগ আঁকড়ে ধরেন এবং আরেক হাত দিয়ে জনি নামের ওই যুবককে ধরে ডাক-চিৎকার দেন। এতে ব্যাংকের ভেতরে থাকা অন্যান্য গ্রাহক এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সেখানে ছুটে গিয়ে আমিনুলকে রক্ষা করেন এবং জনিকে ধরে ব্যাংকের ভেতরে নিয়ে আটকে রাখেন। পরে কোতোয়ালি থানায় খবর দিলে পুলিশ ব্যাংকে গিয়ে জনিকে আটক করে।

আমিনুল ইসলাম নগরের সদর রোডে অগ্রণী ব্যাংকের শাখা থেকে পাঁচ লাখ টাকা তুলে একটি ব্যাগে ভরে সিঁড়ি দিয়ে নিচে নামছিলেন। এ সময় তাঁর চোখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেওয়া হয়।

অগ্রণী ব্যাংক সদর রোড শাখার জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা সমর রঞ্জন দরজি বলেন, ছিনতাইচেষ্টার ঘটনাটি ব্যাংকের মধ্যে নয়, ব্যাংকের সিঁড়িতে ঘটেছে। এ সময় অন্যরা ছিনতাইকারীকে ধরে ফেলেন। পরে তাঁকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নুরুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে মামলাসহ যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। একই সঙ্গে জনির দুই সহযোগীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন