বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

যেখান থেকে ব্যাগটি উদ্ধার হয়েছে, পাশেই আবদুল জলিল নামের এক ব্যক্তির বাড়ি। তিনি বলেন, বাড়ির পেছনে পরিত্যক্ত জায়গায় সাদা রঙের ব্যাগের ভেতরে লাল টেপে মোড়ানো বড় আকারের বোমাসদৃশ বস্তুগুলো পড়ে ছিল। পুলিশ এসে উদ্ধার করার পর বিষয়টি জানতে পারেন। তবে এগুলো কোথা থেকে কীভাবে এল, তা তিনি জানেন না।

বগুড়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজা প্রথম আলোকে বলেন, ঢাকা থেকে আসা বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের সদস্যরা উদ্ধার হওয়া বিস্ফোরক নিষ্ক্রিয় করার কাজ শুরু করেছেন। তবে এগুলো বোমা কি না, তা এখনো নিশ্চিত করতে পারেননি দলের সদস্যরা।

ওসি সেলিম রেজা আরও বলেন, বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে গোকুল ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর পাড়ার একটি বাড়ির পেছন থেকে ব্যাগে ভরা লাল রঙের টেপে মোড়ানো বোমাসদৃশ বস্তু পাওয়া যায়। খবর পেয়ে সদর থানার পুলিশ তাৎক্ষণিক উপস্থিত হয়ে ওই জায়গা ঘিরে রাখে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, এগুলো শক্তিশালী বিস্ফোরক। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সামনে রেখে নাশকতার উদ্দেশ্যে কেউ এসব মজুত করতে পারেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন