বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আবু জাহের বলেন, যোগ্য ব্যক্তিকে আওয়ামী লীগ থেকে  মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক অর্থের বিনিময়ে অযোগ্য ব্যক্তিদের আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিয়েছেন। সেখানে নৌকার পরাজয় হয়নি। পরাজয় হয়েছে অযোগ্য ব্যক্তি মনোনয়ন পাওয়ায়। স্থানীয় ভোটাররা অযোগ্য ব্যক্তিদের ভোট দেননি। নৌকার কোনো দোষ নেই। নৌকার মাঝির কারণেই নৌকা ফেল করেছে।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, মাধবপুর ইউপিতে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. ফরিদ উদ্দিন এবং ব্রা‏হ্মণপাড়া সদরে একই দলের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. জহিরুল হক জয় পেয়েছেন। তিন ইউপিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা জয় পেয়েছেন। এর মধ্যে সাহেবাবাদ ইউপিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য ও উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের আহ্বায়ক মো. মনির হোসেন চৌধুরী, শশীদলে আওয়ামী লীগের আতিকুর রহমান এবং সিদলাই ইউপিতে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. সাইফুল ইসলাম জয় পেয়েছেন।

বিএনপির তিন নেতার জয়
দুলালপুর ইউনিয়নে নির্বাচিত হয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান ভূঁইয়া। তিনি ওই ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক। চান্দলা ইউনিয়ন থেকে নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপি নেতা ফারুক। মালাপাড়া ইউনিয়নে অপর বিএনপি নেতা আবদুল্লাহ আল মামুন নির্বাচিত হয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন