default-image

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যে তাণ্ডব চালানো হয়েছে, সেটি একটি সংগঠনের ব্যানারে হয়েছে। তবে এতে যুক্ত হয়েছিল বিএনপি ও জামায়াত। তারাই এ ঘটনাগুলো ঘটিয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তাণ্ডব ইসলামের ওপর কালিমা লেপন করেছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রামে আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘মুজিব কর্নার ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রিসার্চ সেন্টার ফর ইসলাম অ্যান্ড ইন্টাররিলিজিয়াস ডায়ালগের’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরকে অজুহাত হিসেবে নেওয়া হয়েছিল মন্তব্য করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘তারা বাংলাদেশকে আফগানিস্তান বানানোর স্বপ্ন দেখে। এই অপশক্তিকে রুখতে হবে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রীতিমতো মানুষের ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। ব্যক্তিগত গাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। ইসলাম কখনো এগুলো সমর্থন করে না।’

বিজ্ঞাপন

আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় বোর্ড অব ট্রাস্টির চেয়ারম্যান সাংসদ আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য আনোয়ারুল আজিম আরিফ, সাংসদ খাদিজাতুল আনোয়ার, ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য রিজিয়া রেজা চৌধুরী প্রমুখ।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘এই বিশ্ববিদ্যালয়েও জগদ্দল পাথরের মতো অপশক্তি বাসা বেঁধেছিল। এখানে একসময় বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়নি। জাতীয় দিবসগুলোও উদ্‌যাপিত হয়নি। অপশক্তির হাত থেকে বিশ্ববিদ্যালয়টি উদ্ধার করা হয়েছে।’

এই আয়োজনে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, কোনো রাজনৈতিক দল এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেনি। কোনো রাজনৈতিক দলের সম্পদও নয় এটি। ইসলামিক শিক্ষায় জাতিকে যাঁরা আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন, তাঁদের প্রচেষ্টায় এ বিশ্ববিদ্যালয় আজ এখানে এসেছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন