default-image

বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেছেন, সংবাদপত্র পড়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভয়াবহতা নিরূপণ করা সম্ভব নয়। খুবই ঠান্ডা মাথায় পরিকল্পিতভাবে ধ্বংসযজ্ঞ চালানো হয়েছে। এই ধ্বংসযজ্ঞ একাত্তরকেও হার মানিয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও সহিংসতার ঘটনায় হেফাজতের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পেশাদার লোকজন জড়িত ছিল।

রোববার বিকেলে বাম গণতান্ত্রিক জোটের একটি প্রতিনিধিদল ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও সহিংসতার ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করেন। শেষে তাঁরা হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে আসেন। প্রেসক্লাব মিলনায়তনে মতবিনিময়ের সময় এসব কথা বলেন সাইফুল হক। তিনি বলেন, এই ধ্বংসযজ্ঞের দায়দায়িত্ব হরতাল আহ্বানকারী হেফাজতে ইসলামকেই নিতে হবে। হেফাজতের হরতালের দিন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও জেলা প্রশাসন চূড়ান্ত দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়েছে। ভাঙচুরের সঙ্গে ক্রিয়াশীল বিভিন্ন সংগঠনের লোকজনও জড়িত ছিল। তিনি বিশ্বাসযোগ্য ও নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন।

এ সময় বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক বজলুর রশীদ, সিপিবির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুল্লাহ আল কাফি, গণসংহতি আন্দোলনের সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য বাচ্চু ভূঁইয়া, জেলা সিপিবির সভাপতি শাহরিয়ার মোহাম্মদ ফিরোজ, সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন