default-image

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মো. হাবিবুর রহমান বলেছেন, বাংলাদেশকে পিছিয়ে দেওয়ার জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সহিংসতা চালানো হয়েছে। কারা কারা ঘটনার সঙ্গে জড়িত ছিল, পুলিশ সেগুলো পর্যালোচনা করছে। ভিডিও ফুটেজ থেকে আসামিদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। ইতিমধ্যে অনেককেই শনাক্ত এবং গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কোনো মামলাই ঝুলে থাকবে না। যত দ্রুত সম্ভব সব মামলা নিষ্পত্তির দিকে যাবে।

সম্প্রতি হেফাজতে ইসলামের নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সুরসম্রাট দ্য আলাউদ্দিন সংগীতাঙ্গন পরিদর্শন করে আজ শনিবার সকালে ডিআইজি মো. হাবিবুর রহমান এসব কথা বলেন।

ডিআইজি বলেন, ‘কোনো সভ্য মানুষের পক্ষে এ ধরনের আচরণ করা সম্ভব নয়। এটি সম্পূর্ণ স্বাধীনতাবিরোধী ও ইতিহাস-ঐতিহ্যবিরোধী কাজ। বাংলাদেশকে যেন পিছিয়ে দেওয়া যায়, এটি সে ধরনের স্বাধীনতাবিরোধী চক্রের কাজ বলে আমি মনে করি। যারা এই ঘটনার পেছনে ইন্ধনদাতা, যারা পরিকল্পনাকারী, তারা ঘটনাস্থলে থাক বা না থাক, অবশ্যই আইনের আওতায় আসবে। আইনের কিছু প্রক্রিয়া আছে, সেই প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই তারা আইনের আওতায় আসবে।’

বিজ্ঞাপন

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘জেলা পুলিশ, সিআইডি ও পিবিআই সম্মিলিতভাবে মামলাগুলো তদন্ত করছে। আমরা সবাই সমন্বয়ের মাধ্যমে তদন্ত করছি। ইতিমধ্যে মামলাগুলো তদন্তকারী কর্মকর্তাদের কাছে দেওয়া হয়েছে। তাঁরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।’

এর আগে ডিআইজি হাবিবুর রহমান হেফাজতের সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা কার্যালয়, উস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তন ও সদর উপজেলা ভূমি কার্যালয় পরিদর্শন করেন। এ সময় ডিআইজির সঙ্গে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মো. আনিসুর রহমান, সিআইডির ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মো. শাহরিয়ার রহমান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পঙ্কজ বড়ুয়া, সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ শাহজাহান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের কর্মী-সমর্থকদের সহিংসতার ঘটনায় ৫৬টি মামলা হয়। এর মধ্যে ৯টি মামলা তদন্ত করছে সিআইডি। এ ছাড়া ২০১৬ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরে মাদ্রাসাছাত্রদের চালানো সহিংসতার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলাগুলোর মধ্যে ৫টি মামলার তদন্তভারও সিআইডিকে দেওয়া হয়েছে।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করে গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক সহিংসতা চালান হেফাজতে ইসলামের কর্মী-সমর্থকেরা। তাঁরা সরকারি-বেসরকারি বেশ কয়েকটি স্থাপনায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেন। এসব ঘটনায় দায়ের হওয়া ৫৬টি মামলায় আজ সকাল পর্যন্ত ৩৯৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন