ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের কর্মী ও সমর্থকদের দেওয়া আগুনে পুড়ে যায় সুরসম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তনের সবকিছু
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের কর্মী ও সমর্থকদের দেওয়া আগুনে পুড়ে যায় সুরসম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তনের সবকিছু ফাইল ছবি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও সহিংসতার ঘটনায় আরও চারটি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় অজ্ঞাতনামা ১ হাজার ৬৪০ জনকে আসামি করা হয়েছে। গত বুধবার রাত থেকে আজ শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত সদর মডেল ও আশুগঞ্জ থানায় এসব মামলা করা হয়। এ নিয়ে সহিংসতার ঘটনায় মোট ৪৯টি মামলা হয়েছে। এতে ৩৪ হাজার ৬৪০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

পুলিশ ও মামলার নথিপত্র সূত্রে জানা গেছে, গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সহিংসতার ঘটনায় ৪৯টি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে সদর থানায় ৪৩টি, আশুগঞ্জ থানায় ৩টি, সরাইল থানায় ২টি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আখাউড়া রেলওয়ে থানায় ১টি মামলা হয়েছে। ৪৯টির মধ্যে ১২টি মামলায় ২৫২ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। বাকি সবাই ‘অজ্ঞাতনামা দুষ্কৃতকারী’। কোনো কোনো মামলায় ‘অজ্ঞাতনামা কওমি মাদ্রাসাছাত্র-শিক্ষক ও তাঁদের অনুসারী দুষ্কৃতকারীদের’ কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

সদর থানা সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার রাত থেকে আজ বিকেল পর্যন্ত সহিংসতার ঘটনায় তিনটি মামলা হয়েছে। ২৬ মার্চ বেলা তিনটার দিকে জেলা শহরের কুমারশীল মোড় এলাকায় অবস্থিত মা ও শিশুকল্যাণ কেন্দ্রে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে সদর থানায় একটি মামলা করা হয়। মামলায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া হেফাজতে ইসলামের সমর্থনে অজ্ঞাতনামা ৮০০ থেকে ৯০০ জনকে আসামি করা হয়। মামলায় চার লাখ টাকার ক্ষতির কথা উল্লেখ করা হয়।

বিজ্ঞাপন
default-image

গত ২৮ মার্চ হেফাজতের হরতাল পালনের সময় বেলা একটার দিকে পৌর এলাকার মধ্যপাড়ায় অবস্থিত ব্রাদার্স ইউনিয়ন ক্লাবে হরতাল আহ্বানকারী ও হরতাল সমর্থনকারীরা হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। এ ঘটনায় ক্লাবের সভাপতি মাহবুবুল আলম খোকন বাদী হয়ে গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সোয়া ১২টার দিকে অজ্ঞাতনামা ৮০ থেকে ৯০ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। একই দিন বেলা তিনটার দিকে জেলা শহরের পাইকপাড়ায় পৌর মেয়র নায়ার কবিরের বাসার নিচতলার একটি দোকানে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট করা হয়। ওই মুদিদোকানে হামলা ও ভাঙচুরে এবং লুটপাটে ৪ লাখ ৯৮ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। মামলায় অজ্ঞাতনামা ১০০ থেকে ১৫০ জনকে আসামি করা হয়।

এদিকে হেফাজতের হরতালের দিন দুপুরে আশুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু নাসের আহাম্মদের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। এ ঘটনায় আওয়ামী লীগের এই নেতার ভাই মো. আবু রেজভী বাদী হয়ে গত বুধবার আশুগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় ৪৩ জনের নাম উল্লেখসহ জামায়াত-বিএনপি ও ছাত্রদলের অজ্ঞাতনামা ৫০০ জনকে আসামি করা হয়। মামলায় ৪৯ লাখ টাকার ক্ষতির কথা উল্লেখ করা হয়।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রহিম প্রথম আলোকে বলেন, ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সহিংসতার ঘটনায় আজ দুপুর পর্যন্ত সদর থানায় ৪৩টি মামলা হয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রইছ উদ্দিন (অপরাধ ও প্রশাসন) প্রথম আলোকে বলেন, ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত সহিংসতার ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, সরাইল, আশুগঞ্জ ও আখাউড়া রেলওয়ে থানায় ৪৯টি মামলা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ১৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত মোট ৫৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সহিংসতার ঘটনায় বিভিন্ন স্থিরচিত্র ও ভিডিও ফুটেজ বিশ্লেষণপূর্বক এসব আসামিকে শনাক্ত করা হয়েছে। জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারে পুলিশের একাধিক দল কাজ করছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন