default-image

শত দারিদ্র্যের মধ্যেও ইচ্ছা ছিল মেয়েকে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানোর। মেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণও হয়েছেন। কিন্তু অর্থাভাবে মেয়ের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আটকে আছে। সাহায্যের জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন এক অসহায় মা।

গতকাল রোববার দুপুরে এই মেধাবী শিক্ষার্থীর মা হেলেনা খাতুন কোনো দিশা না পেয়ে শেরপুরের নালিতাবাড়ী প্রেসক্লাবে ছুটে আসেন। তাঁর মেয়ে লাইলাতুন ফারজানা পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। সেখানে ভর্তির শেষ সময় এগিয়ে এসেছে। অথচ এখনো ভর্তির টাকা জোগাড় করতে পারেনি তাঁর পরিবার। অসহায়ত্বের কথা বলতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন হেলেনা।

ফারজানা নালিতাবাড়ী পৌর শহরের দক্ষিণ গড়কান্দা এলাকার মো. শওকত আলীর মেয়ে। তাঁর বাবা লন্ড্রির দোকান চালান। মা গৃহিণী।

ফারজানা পৌর শহরের আবদুল হাকিম স্মৃতি মডেল উচ্চবিদ্যালয় থেকে ২০১৭ সালে এসএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পান। শহিদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজ থেকে এইচএসসিতে পান জিপিএ-৪.৮৩।

গত ৩০ নভেম্বর পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন ফারজানা। গত শনিবার রাতে সেখান থেকে মুঠোফোনে পাঠানো খুদে বার্তায় তাঁকে কাল মঙ্গলবারের মধ্যে ভর্তি হওয়ার জন্য জানানো হয়। তাঁর ভর্তির জন্য প্রয়োজন ১৩ হাজার টাকা। কিন্তু দরিদ্র মা–বাবার কাছে এত টাকা না থাকায় শেষ সময়ে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছে গোটা পরিবার।

কোনো উপায় না পেয়ে টাকার জন্য মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন ফারজানার মা। গতকাল দুপুরে তিনি ছুটে আসেন প্রেসক্লাবে। তিনি সাংবাদিকদের কাছে নিজের অসহায়ত্বের কথা তুলে ধরেন। কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘আমি অহন কী করমু? হাতে টেহা আছে মাত্র তিন হাজার। আরও ১০ হাজার টাকার প্রয়োজন। মেয়ে বারবার টেহার লাইগা ফোন দেয়। আমি বলি, আল্লার রহমে একটা ব্যবস্থা অইব। তুমি দুশ্চিন্তা কইরো না।’

ফারজানা মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, তিনি পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষি বিভাগে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। কাল মঙ্গলবার ভর্তির শেষ সময়। এর মধ্যে টাকা জোগাড় না হলে তাঁর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির স্বপ্নই শেষ হয়ে যাবে।

আবদুল হাকিম স্মৃতি মডেল উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক যোগেন চন্দ্র বলেন, ফারজানা অত্যন্ত মেধাবী, কিন্তু পরিবারটি দরিদ্র। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেলে উচ্চশিক্ষায় অনেক ভালো করবেন।

ফারজানাকে সহায়তার জন্য যোগাযোগ নম্বর: ০১৯৬০–১৩০৬৪৪ (হেলেনা খাতুন)

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0