বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ৪ আগস্ট সৌদি আরবের রিয়াদ নগরের হারা এলাকায় জাকির হোসেনের নিজ বাসায় দুর্বৃত্তরা তাঁকে গলা কেটে হত্যা করে। ২২ পর দিন গ্রামের বাড়িতে আজ সকালে তাঁর লাশ পৌঁছেছে। লোকজনের ভিড় এড়াতে তিন ঘণ্টা পরই তাঁর লাশ নিয়ে যাওয়া হয় অরুয়াইল আবদুস সাত্তার ডিগ্রি কলেজ মাঠে। যেখানে তাঁর জানাজা পড়ানো হবে।

পারিবারিক সূত্রে আরও জানা গেছে, সৌদি আরব থেকে ৪ আগস্ট দুপুরে জাকিরের মেজ ভাই গাজী সুরাহান মিয়া (৩২) পরিবারের লোকজনকে মুঠোফোনে জানান, জাকির হোসেন আর নেই। তাঁকে গলা কেটে ও পেটে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার পর তাঁর কাছে থাকা দেড় লাখ রিয়ালও লুটে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

জাকিরের বড় ভাই দুলাল মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, ছোট ভাই জাকির হোসেনের সঙ্গে একই কক্ষে থাকতেন তাঁদের গ্রামের দুই ব্যক্তি। একজন চাচাতো ভাই রুমান মিয়া (২৫) ও অপরজন সম্পর্কে ভাতিজা আক্কাস মিয়া (৩৫)। পাশের কক্ষে থাকতেন জাকিরের বড় ভাই গাজী সুরাহান মিয়া। ৪ আগস্ট স্থানীয় সময় সকাল সাতটার দিকে সবাই একসঙ্গে ঘর থেকে বের হয়ে নিজ নিজ কর্মস্থলে চলে যান। এ সময় জাকির হোসেন তাঁর কক্ষেই ছিলেন। দুপুরের দিকে সুরাহান মিয়া জানতে পারেন, তাঁর ভাইকে গলা কেটে ও পেটে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় সেখানকার পুলিশ রুমান মিয়া, আক্কাস মিয়াসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে।

দুলাল মিয়া জানান, জাকির হোসেন সেখানে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চুক্তিভিত্তিক বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগ দিতেন। এ নিয়ে ধামাউড়া গ্রামের কয়েকজনের সঙ্গে জাকির হোসেনের বিরোধ চলছিল। দুলাল মিয়ার ধারণা, অরুয়াইল ইউনিয়নের ছয়জন মিলে তাঁর ভাইকে খুন করেছেন। এর মধ্যে দুজন হত্যাকাণ্ডের দুই সপ্তাহ আগে দেশে এসেছেন। তাঁদের পরিকল্পনাতেই তাঁর ভাই খুন হয়েছেন।

বাংলাদেশে এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেবেন কি না, জানতে চাইলে দুলাল মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, ‘বাংলাদেশে অবস্থানরত দুজনসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা দিতে থানায় গিয়েছিলাম। কিন্তু পুলিশ মামলা নেয়নি। উপযুক্ত প্রমাণসহ আবার থানায় যাব, মামলা দেব।’

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, সৌদি আরবে বাংলাদেশি নাগরিক খুনের ঘটনায় সেখানকার আইনে সেখানেই মামলা হবে। বাংলাদেশি কোনো লোক পরিকল্পনায় বা অন্যভাবে যুক্ত আছেন কি না, তা তদন্ত করে দেখতে হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন