বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এলজিইডির দুমকি উপজেলা কার্যালয় জানায়, ২০২০-২১ অর্থবছরে পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) কার্যালয় থেকে পুকুরজনা বাজার পর্যন্ত ৫ দশমিক ২ কিলোমিটার বাঁধের ওপর কার্পেটিং করে ইউনিয়ন সংযোগ সড়ক নির্মাণ করে এলজিইডি। এতে ব্যয় হয় সাড়ে তিন কোটি টাকা। গত ডিসেম্বরে সড়কের নির্মাণকাজ শেষ হয়। জুলাইয়ের শেষ দিকে অতিবৃষ্টি ও নদ-নদীর পানি অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পায়। পানির তীব্র স্রোতে সড়কের দক্ষিণ পাঙ্গাশিয়া এলাকায় বাঁধের ৬০ মিটারের বেশি অংশ ভেঙে বিলীন হয়। ক্ষতিগ্রস্ত হয় সড়ক।

* দক্ষিণ পাঙ্গাশিয়া এলাকায় বাঁধের ৬০ মিটারের বেশি অংশ ভেঙে বিলীন হয়। * বাঁধের ওপরের পাকা সড়কটির কিছু অংশ ভেঙে গেছে। দক্ষিণ পাশে সড়কে ফাটল ধরেছে।

শুক্রবার সরেজমিন দেখা যায়, দক্ষিণ পাঙ্গাশিয়া এলাকার হেজবুল বয়াতীর বাড়িসংলগ্ন এলাকার বাঁধ ভেঙে গেছে। বাঁধের ওপরের পাকা সড়কটির কিছু অংশ ভেঙে গেছে। দক্ষিণ পাশে সড়কে ফাটল ধরেছে। যেকোনো সময় সেটিও ভেঙে পড়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয় লোকজন।

হেজবুল বয়াতী জানান, তাঁর বাড়ির পাশেই এই সড়ক। প্রতিদিন ইউনিয়নের দক্ষিণ এলাকার লোকজন এই সড়ক দিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ প্রয়োজনীয় কাজে ইউপি কার্যালয়ে যাতায়াত করে থাকেন। নদীর স্রোতে সড়কটি ঝুঁকির মুখে পড়েছে।

পাঙ্গাশিয়া ইউপির চেয়ারম্যান গাজী নজরুল ইসলাম জানান, ইউনিয়নের দক্ষিণ প্রান্তের অন্তত চারটি গ্রামের মানুষের ইউপি কার্যালয়ে যাতায়াতের সহজ পথ এই সড়ক। পাশাপাশি ওই সব গ্রামের শিক্ষার্থীরা এই পথ দিয়ে যাতায়াত করছে। বাঁধ ভেঙে গেলে সড়ক যোগাযোগও বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। দক্ষিণের বাসিন্দাদের ইউপি কার্যালয়ে সেবা নিতে আসতে নৌকা অথবা ট্রলারে কিংবা অন্তত পাঁচ কিলোমিটার ঘুরে আসতে হবে। এ ছাড়া বাঁধ ভেঙে গেলে নদীপারের গ্রামগুলোতে ফসলের আবাদও বাধাগ্রস্ত হবে।

এলজিইডির দুমকি উপজেলা প্রকৌশলী মো. আজিজুর রহমান বলেন, এলজিইডি থেকে সড়ক মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে একটি প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে। বরাদ্দ পেলে সড়কটি মেরামতের কাজ শুরু হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন