বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গ্রামের বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল শুক্রবার দুপুরে মান্নান মোল্লার পক্ষের ইয়াছিন নামের এক ব্যক্তিকে মতিয়ারের পক্ষের লোকজন মারধর করেন। এ নিয়ে গ্রামে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে গতকাল সন্ধ্যার পর দুই পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে পাঁচজন আহত হন।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আজ সকাল ৭টার দিকে দুই পক্ষের কয়েক শ লোক ঢাল, সড়কিসহ দেশি অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় আরও ২০ জন আহত হন। সংঘর্ষের সময় উভয় পক্ষের ১২টি বাড়ি, ১টি মোটরসাইকেল, ১টি পিকআপ ও ১টি দোকান ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
ক্ষতিগ্রস্ত শাজাহান শেখ অভিযোগ করেন, তাঁর বাড়ি থেকে কমপক্ষে ২০ লাখ টাকা মূল্যের ২৫ মণ পেঁয়াজবীজ লুট করে নিয়ে গেছে।

ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, সংঘর্ষের ঘটনায় ২৫ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে গুরুতর আহত তিনজনকে ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাঁরা হলেন জসিম শেখ (৩২), লুৎফর মিয়া (৪৫) ও সুজন মোল্লা (২৪)।

ভাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সেলিম রেজা বলেন, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করেই এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে পুলিশ এলাকায় গিয়ে সংঘর্ষ থামিয়েছে। আজ দুপুর পর্যন্ত এ ব্যাপারে থানায় কেউ অভিযোগ করেননি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন