বরিশাল নগরের পদ্মবতী এলাকায় একসময় পাইকারি চামড়া বাজার বেশ জমজমাট ছিল। কিন্তু কয়েক বছর ধরে চামড়ার দাম কমে যাওয়া এবং ট্যানারিতে বাকি পড়ে থাকায় লোকসানের মুখে অনেকেই এই ব্যবসা গুটিয়ে নিয়ে অন্য ব্যবসা শুরু করেছেন।

পদ্মাবতী এলাকাকেন্দ্রিক বরিশাল চামড়া ব্যবসায়ী সমিতিতে সদস্যসংখ্যা ২৬। একসময় তাঁরা সবাই চামড়ার ব্যবসা করতেন। কিন্তু এখন সমিতির দু-চারজন ছাড়া অন্যরা এ ব্যবসায় নেই। এবার পাইকারি চামড়া কিনছেন সমিতির সভাপতি বাচ্চু মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দীন এবং গৌরনদীর টরকি বন্দরের ব্যবসায়ী ফিরোজ সরদার।

ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বাচ্চু মিয়া আজ সোমবার দুপুর পর্যন্ত সাড়ে পাঁচ হাজার গরুর চামড়া কিনেছেন। এ ছাড়া নাসির উদ্দীন কিনেছেন সাড়ে চার হাজারের বেশি। টরকি বন্দরের ফিরোজ সরদার নামে আরেক ব্যবসায়ী সবচেয়ে বেশি চামড়া সংগ্রহ করেছেন। তিনি ১৫ হাজারের বেশি চামড়া দুই দিনে সংগ্রহ করেছেন।

এবার বরিশালের বাজারে বড় আকারের চামড়া ৭০০, মাঝারি আকারের ৫০০ থেকে ৬০০ ও ছোট আকারের চামড়া মানভেদে ২০০ থেকে ৩৫০ টাকায় কিনছেন ব্যবসায়ীরা। তবে টরকি বন্দরের ব্যবসায়ী ফিরোজ সরদার বলেন, তিনি ৮০০ থেকে ৮৫০ টাকা পর্যন্ত দামে চামড়া কিনেছেন।

বরিশাল সদরের তালুকদার বাজার এলাকার দিনমজুর আলী হোসেন এবার কোরবানির গরু জবাই করার মাংস প্রস্তুত করে দিয়ে মজুরির বাইরে তিনটি গরুর চামড়া পেয়েছিলেন। আলী হোসেন বলেন, আগে চামড়া বিক্রি করতেন পানির দামে। এবারও মনে করেছিলেন দাম পাবেন না। কিন্তু বড়-ছোট মিলিয়ে তিনটি চামড়া ১ হাজার ৬৫০ টাকায় বিক্রি করেছেন।

বরিশালের চামড়া ব্যবসায়ীরা জানান, এবার ক্রেতাদের মধ্যে চামড়া বিক্রির আগ্রহ বেড়েছে। দাম একটু ভালো পাওয়ায় এটা হয়েছে। এ জন্য তাঁরাও বেশি চামড়া কিনতে পারছেন।

বরিশাল নগরের রসূলপুরে নাসির উদ্দীন ও পোর্টরোড এলাকায় বাচ্চু মিয়ার গুদামে এসব চামড়া সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়াজাতকরণের কাজ করছেন শ্রমিকেরা। বাচ্চু মিয়া জানান, এসব চামড়া প্রক্রিয়াজাত করে এখন গুদামজাত করা হচ্ছে। এরপর আগামী মাসের প্রথম দিকে প্রক্রিয়াজাত করা চামড়া ঢাকায় পাঠানো হবে।

এদিকে দুই দিন ধরে বাজার তদারকি অব্যাহত রেখেছেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের গঠন করে দেওয়া এই দলের সদস্যরা লবণের দাম নিয়ন্ত্রণ, ক্রেতাপর্যায়ে চামড়ার সঠিক দাম দেওয়া হচ্ছে কি না, তা তদারকি করছেন। এই দলের সমন্বয় করছেন ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) আঞ্চলিক কার্যালয়ের প্রধান আল-আমীন হাওলাদার, জাতীয় ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বরিশাল জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শাহ্ মো. শোয়াইব মিয়া।

সহকারী পরিচালক শাহ্ মো. শোয়াইব মিয়া আজ সোমবার দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, যেহেতু সরকার বিদেশে চামড়া রপ্তানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাই সঠিকভাবে চামড়া সংরক্ষণের বিষয়ে জোর দেওয়া হচ্ছে। সেই সঙ্গে লবণের দাম ঠিক থাকায় এবার চামড়ার বাজারে বিরূপ প্রতিক্রিয়া নেই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন