default-image

ভালো শিক্ষক না হলে ভালো শিক্ষার্থী তৈরি হবে না। তেমনি ভালো শিক্ষার্থী তৈরি না হলে ভালো জাতি গঠন করা সম্ভব নয়। প্রথম আলো প্রিয় শিক্ষক সম্মাননা ২০২০–এর মাধ্যমে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষকদের যে সম্মান প্রদান করছে, তা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার।
আইপিডিসি-প্রথম আলো প্রিয় শিক্ষক সম্মাননা উপলক্ষে বুধবার দুপুরে কুষ্টিয়া অঞ্চলে আয়োজিত অনলাইন সুধী সংযোগে বক্তারা এসব কথা বলেন। দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এ ভার্চ্যুয়াল সুধী সমাবেশ হয়।
সুধী সমাবেশে কুষ্টিয়া অঞ্চলের পাঁচ জেলা ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, পাবনা ও কুষ্টিয়া জেলার শিক্ষক, সাংস্কৃতিক সংগঠক, সাহিত্যিক, সমাজকর্মী, স্বেচ্ছাসেবীসহ নানা পেশার মানুষ যোগ দেন। দুপুর ১২টায় সুধী সমাবেশ শুরু হয়। প্রথম আলোর কুষ্টিয়া প্রতিনিধি তৌহিদী হাসানের সঞ্চালনায় শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন প্রথম আলোর যুব কার্যক্রম ও ইভেন্টস বিভাগের প্রধান মুনির হাসান।

বিজ্ঞাপন

শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের অ্যাক্টিং হেড অব রিটেইল বিজনেস সাভরিনা আরিফিন। তিনি বলেন, ‘প্রিয় শিক্ষকের প্রতি সম্মান জানাতে পেরে আমরা গর্বিত। ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে শিক্ষকদের ভূমিকা অতুলনীয়। দেশজুড়ে থাকা অনন্য এই শিক্ষকদের খুঁজে বের করতে আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রয়াস।’
অনুষ্ঠানে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য বিদায়ী কোষাধ্যক্ষ সেলিম তোহা নিজের শিক্ষাজীবনের কথা তুলে ধরে আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, ‘রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় এক শিক্ষকের ভালোবাসা ও আদর পাওয়ার স্মৃতি আজও আমাকে কাঁদায়। এমন ভালোবাসা পাওয়া সত্যিই ভাগ্যের ব্যাপার। মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষক পেশায় আসার ব্যাপারে প্রথম আলোর উদ্যোগ আগ্রহী করে তুলবে। প্রিয় শিক্ষকই পারেন বিপথগামী এক শিক্ষার্থীকে ভালো পথে ফিরিয়ে আনতে।’
কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ আনসার হোসেন বলেন, ‘প্রিয় শিক্ষক আমার মা।’
কুষ্টিয়া সরকারি সেন্ট্রাল কলেজের অধ্যক্ষ আজমল গণি আরজু বলেন, ‘ভালো শিক্ষক না হলে ভালো শিক্ষার্থী তৈরি হবে না। তেমনি ভালো শিক্ষার্থী তৈরি না হলে ভালো জাতি গঠন করা সম্ভব নয়।’

চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ সিদ্দিকুর রহমান বলেন, গ্রামে থাকা শিক্ষকদের মূল্যায়ন করতে হবে। অনেকে নিভৃত থেকে আলো ছড়াচ্ছেন। কিন্তু তাদের খোঁজ কেউ রাখেন না। তাঁদের মূল্যায়ন করতে পারলে ভবিষ্যতে আরও ভালো শিক্ষক পাওয়া যাবে।
পাবনার চক ছাতিয়ানি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মারুফ হায়দার বলেন, ‘প্রাথমিকের শিক্ষকদের বেতন ও মর্যাদা বৃদ্ধি করা গেলে উচ্চশিক্ষিত অনেক শিক্ষার্থী এ পেশায় আসতে আগ্রহী হবেন। এতে ছোটবেলা থেকেই শিশুদের প্রাথমিক জ্ঞান বৃদ্ধি পাবে।’
অনুষ্ঠানে আরও যুক্ত থেকে স্মৃতিচারণা করে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মুন্সী আবু সাঈফ, পাবনা সিটি কলেজের সহকারী অধ্যাপক শামসুন্নাহার বন্যা, কুষ্টিয়া কলকাকলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জেব-উন-নিসা, মেহেরপুরের সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে একাধিক ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হয়। এ ছাড়া প্রিয় শিক্ষক সম্মাননার মনোনয়ন জমা দেওয়ার বিষয়ে আলোচনা হয়। অনলাইনে নির্দিষ্ট ফরমে আবেদন করা যাবে (www.priyoshikkhok.com) এই ওয়েব ঠিকানায়। কুষ্টিয়া বন্ধুসভার সদস্যরা এ অনুষ্ঠান আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতা করেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0