ভাসানচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, আজ বৃহস্পতিবার নতুন করে ভাসানচরে আসা রোহিঙ্গাদের প্রথমে জাহাজ থেকে নামিয়ে স্থানীয় হেলিপ্যাডে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও অন্যান্য আনুষ্ঠানিকতা শেষে দুপুরে তাঁদের নির্ধারিত ক্লাস্টারে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখানে তাঁদের খাবার দেওয়া হয়েছে।

২০১৭ সালের আগস্টে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর গণহত্যা ও নিপীড়নের মুখে দেশটি থেকে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন। আগের ও তখনকার মিলিয়ে প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা কক্সবাজারে বসবাস করছে। ওই বছরের নভেম্বর মাসে কক্সবাজার থেকে এক লাখ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে সরিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে একটি প্রকল্প নেয় সরকার। বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে আশ্রয়ণ-৩ নামের ওই প্রকল্প বাস্তবায়নের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন