বিজ্ঞাপন

হাট-বাজার ইজারা কমিটির সদস্য ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান দুলাল চন্দ্র মহন্ত বলেন, ১৭ মে ইজারা কমিটির সভায় আপত্তি উপেক্ষা এবং উপজেলা পরিষদকে না জানিয়েই বিধিমালা লঙ্ঘন করে মেসার্স রাহী এন্টারপ্রাইজকে হাট ইজারা দেওয়া হয়েছে। রাহী এন্টারপ্রাইজের মালিক সাবেক সাংসদ রেজাউল করিম হলেও ইজারা নথিতে আবদুল করিম উল্লেখ করা হয়েছে।

নন্দীগ্রাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল আশরাফ অভিযোগ করেন, সরকারি হাট-বাজার ইজারা নীতিমালার ২-এর ১০ উপধারা অনুযায়ী, উপজেলা পরিষদের নিয়ন্ত্রণাধীন হাট-বাজার ইজারার ক্ষেত্রে পরিষদের সাধারণ বা বিশেষ সভার কার্যবিবরণীসহ মতামত চেয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে প্রেরণ করার কথা। কিন্তু রণবাঘা হাটের ইজারা প্রদানের ক্ষেত্রে উপজেলা পরিষদকে কিছুই জানানো হয়নি। এ কে এম রেজাউল করিমকে গত বছরের চেয়ে অর্ধকোটি টাকা কম মূল্যে হাট ইজারা দেওয়া হয়েছে। ইজারাদারের নাম জালিয়াতি করে এ কে এম রেজাউল করিমের বদলে আবদুল করিম উল্লেখ করা হয়েছে। তবে বাবার নাম ঠিক রাখা হয়েছে।

এ কে এম রেজাউল করিমকে গত বছরের চেয়ে অর্ধকোটি টাকা কম মূল্যে হাট ইজারা দেওয়া হয়েছে। ইজারাদারের নাম জালিয়াতি করে এ কে এম রেজাউল করিমের বদলে আবদুল করিম উল্লেখ করা হয়েছে। তবে বাবার নাম ঠিক রাখা হয়েছে।
রেজাউল আশরাফ, নন্দীগ্রাম উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান

উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, রণবাঘা হাটে ধান বেচাবিক্রির পাশাপাশি গরুর হাটও বসে। গত তিন বছরে এই হাটের গড় ইজারামূল্য ১ কোটি ১৫ লাখ ৬৯ হাজার টাকা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এ বছরের বাংলা ১৪২৮ সনের পয়লা বৈশাখ থেকে আগামী বছরের ৩০ চৈত্র পর্যন্ত মেয়াদে হাট ইজারা প্রদানের জন্য নন্দীগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পক্ষ থেকে গত ৩ ফেব্রুয়ারি ইজারার দরপত্র প্রকাশ করা হয়। এতে দরপত্র দাখিলের জন্য পাঁচটি আলাদা তারিখ উল্লেখ করে ক্যালেন্ডার প্রকাশ করা হয়। পঞ্চম দফায় দরপত্র বিক্রির শেষ তারিখ ছিল ২৮ এপ্রিল। দরপত্র গ্রহণের শেষ দিনে ২৯ এপ্রিল মেসার্স রাহী এন্টারপ্রাইজ সর্বোচ্চ ৮৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা ইজারামূল্য দাখিল করে। আর কোনো দরদাতা ইজারায় অংশগ্রহণ না করায় রাহী এন্টারপ্রাইজকে ওই সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে সুপারিশ করে হাট-বাজার ইজারা কমিটির মতামতের নথি জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠানো হয়। জেলা প্রশাসকের মতামতের ভিত্তিতে সাবেক সাংসদ রেজাউল করিমের রাহী এন্টারপ্রাইজকে আগামী এক বছরের জন্য হাটের টোল আদায়ের অনুমতি দেওয়া হয়।

নাম যা–ই হোক, রাহী এন্টারপ্রাইজ আমার প্রতিষ্ঠান। আমার বাবার নাম মজিবর রহমান।’ তাঁর দাবি, আবদুল করিম তাঁর ব্যবসায়িক অংশীদার।
এ কে এম রেজাউল করিম, সাবেক সাংসদ

আজ বিকেলে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন এতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক স্বপন চন্দ্র মহন্ত, আওয়ামী লীগ নেতা মুকুল হোসেন, সরফুল হক, আনন্দ কুমার, আবদুর রাজ্জাক, যুবলীগ নেতা মোফাজ্জল বারী, আবদুল মান্নান, সুজন প্রামাণিক, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আবু সাঈদ, সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান, ছাত্রলীগের সভাপতি তুহিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক শুভ আহমেদ প্রমুখ।

জানতে চাইলে সাবেক সাংসদ এ কে এম রেজাউল করিম মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, ‘করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে হাট-বাজারে মানুষের আনাগোনা কমেছে। ব্যবসা–বাণিজ্যেও মন্দাভাব বিরাজ করছে। কার্যত রণবাঘা হাটে টোল আদায় হয় ধানের আড়ত থেকে। গরুর হাট বসে বছরের মাত্র তিন মাস। গত বছর হাটের ইজারামূল্য ১ কোটি ৩৩ লাখ হলেও এ বছর কেউ ডাকে অংশ নেয়নি। খাস আদায়ের নামে হাটের টোলের টাকা লুটেপুটে খাওয়ার চেষ্টা করছিলেন স্থানীয় কিছু ব্যক্তি। সরকারের রাজস্ব আদায়ের স্বার্থেই পঞ্চম দফায় ৮৩ লাখ টাকায় ইজারাদর দিয়েছেন। জেলা প্রশাসকের অনুমোদন সাপেক্ষে উপজেলা প্রশাসন তাঁকে ইজারাদার মনোনীত করে চিঠি দিয়েছে।’

‘ভুয়া’ নামে হাট ইজারা প্রসঙ্গে সাবেক এই সাংসদ বলেন, ‘নাম যা–ই হোক, রাহী এন্টারপ্রাইজ আমার প্রতিষ্ঠান। আমার বাবার নাম মজিবর রহমান।’ তাঁর দাবি, আবদুল করিম তাঁর ব্যবসায়িক অংশীদার।

যোগাযোগ করা হলে নন্দীগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শিফা নুসরাত ফোন ধরেননি। বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আবদুল মালেক প্রথম আলোকে বলেন, রণবাঘা হাট ইজারার জন্য দরপত্র ক্রয় ও দাখিলের পাঁচটি আলাদা তারিখ উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছিল। প্রথম চার দফায় কেউ ডাকে অংশ নেননি। পঞ্চম দফায় একজন ইজারাদার ৮৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা ডাক দেন। আর কোনো দরদাতা না পাওয়ায় নীতিমালা অনুসরণ করেই উপজেলা হাট-বাজার ইজারা কমিটি এ বিষয়ে মতামত চেয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে নথি পাঠায়। জেলা প্রশাসক ৮৩ লাখ ৪০ হাজার টাকায় হাট ইজারার পক্ষে মতামত দেন। সেই মোতাবেক উপজেলা প্রশাসন রণবাঘা হাটে টোল আদায়ের জন্য ইজারাদার চূড়ান্ত করেছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন