default-image

কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলায় এক বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার রাত ১টার দিকে উপজেলার শিমুলকান্দি ইউনিয়নের ইমামেরচর গ্রামের ওয়াদুদ মিয়ার বাড়িতে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। পরিবারটির দাবি, ডাকাত দল তাঁদের বাড়ি থেকে চার ভরি স্বর্ণালংকার ও প্রায় এক লাখ টাকা নিয়ে গেছে।

পরিবার ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ওয়াদুদ মিয়ার দুই ছেলে শিপু মিয়া ও পাপ্পু মিয়া প্রবাসে থাকেন। তাঁদের ঘরটি আধা পাকা। রাত ১টার দিকে প্রধান ফটক ভাঙার সময় ওয়াদুদের ঘুম ভেঙে যায়। কিছুক্ষণের মধ্যেই দরজা ভেঙে ডাকাতেরা ঘরে ঢোকে। প্রথমে ওয়াদুদ ও তাঁর স্ত্রী রানু বেগমকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে বেঁধে ফেলে। তারপর ঘর থেকে চার ভরির বেশি স্বর্ণালংকার ও ৮০ হাজার টাকা লুটে নেয় তারা। পাশের কক্ষে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ভাড়ায় থাকেন স্থানীয় মসজিদের ইমাম ইয়াসিন আরাফাত। পরে ওই ইমামকে জিম্মি করে তাঁর ঘর থেকে ৮ হাজার ৬০০ টাকা নিয়ে গেছে ডাকাত দল।

বিজ্ঞাপন

ওয়াদুদ বলেন, ‘ঘরে ঢোকে সাতজন। বাইরেও ছিল কয়েকজন। ঘরে এসেই অস্ত্রের মুখে হাত–পা বেঁধে আমাকে ও আমার স্ত্রীকে মারধর করে। শেষে প্রাণ বাঁচাতে সবকিছু নিয়ে যেতে সহযোগিতা করেছি।’

ইমাম ইয়াসিন আরাফাত বলেন, তাঁর কাছ থেকে নেওয়া টাকাগুলো মসজিদ তহবিলের।

এলাকাবাসী জানান, এর আগে ২২ অক্টোবর একই গ্রামের নবী হোসেন মিয়ার বাড়িতে ডাকাত দল হানা দিয়ে সোয়া দুই ভরি স্বর্ণালংকার ও ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা নিয়ে গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহিন বলেন, শুক্রবার রাতে ভৈরবের কোথাও ডাকাতি হয়েছে, এমন তথ্য তাঁর জানা নেই। তবে এ বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

মন্তব্য পড়ুন 0