রিমার লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেছেন ভৈরব থানার উপপরিদর্শক (তদন্ত) মো. রফিক। তিনি বলেন, আপাতত অপমৃত্যু ধারায় মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর আসল কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

রিমা প্রামাণিকের বাবা সেন্টু প্রামাণিক প্রথম আলোকে বলেন, তাঁর মেয়ের আত্মহত্যা করার মতো কোনো কারণ আছে বলে তিনি বিশ্বাস করেন না। তিনি বলেন, ‘ঈদের আগে তিন দিন বাড়িতে থেকে এল। আমার মেয়ের মধ্যে কোনো পরিবর্তন দেখতে পাইনি। ধারণা করতে পারি, এমন কিছুও আমাদের বলেনি।’

হাসপাতালটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হানিফুর রহমান বলেন, ‘রিমা প্রামাণিক কিছুটা অভিমানী স্বভাবের। রাতে আমাকে ফোন করে জানিয়েছিল সকালে বাড়ি ফিরে যাবে। তখন পর্যন্ত তার সবকিছু স্বাভাবিক মনে হয়েছে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন