বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২৩ ডিসেম্বর পুলিশ চন্ডীবের এলাকার একটি ডোবা থেকে নবীর মৃতদেহের একাংশ উদ্ধার করে। ২৫ ডিসেম্বর মালগুদাম এলাকা থেকে বাকি অংশ উদ্ধার হয়। এই ঘটনায় নবীর স্ত্রী বিলকিছ বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ নজরুলসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। তবে সুমনাকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। পরে মামলাটি তদন্ত করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।
২০১৬ সালের ২১ জানুয়ারি মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা সিআইডির উপপরিদর্শক নজরুল ইসলাম চারজনের নামে আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন