বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বড়চতুল ইউপিতে ৪, ৫ ও ৬ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডের সমন্বয়ে গঠিত সংরক্ষিত ২ নম্বর ওয়ার্ডে মহিলা সদস্যপদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মুক্তাপুর গ্রামের মোছা. সুলতানা বেগম ও মোছা. হাওয়ারুন নেছা। উভয়ে গৃহিণী। সাবেক সংরক্ষিত মহিলা সদস্য হাওয়ারুন সম্পর্কে সুলতানার শাশুড়ি হন। সুলতানা এবারই প্রথমবারের মতো নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। সুলতানার প্রতীক তালগাছ ও হাওয়ারুনের প্রতীক মাইক। নির্বাচনী মাঠে তাঁরা কেউ কাউকে ছাড় দিতে রাজি নন। এটিই এখন উপজেলায় আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আগামী ৫ জানুয়ারি পঞ্চম ধাপের নির্বাচনে বড়চতুল ইউপিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এতে সংরক্ষিত ২ নম্বর ওয়ার্ডে মোট পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এলাকার কয়েকজন ভোটার জানান, দুই ভাইয়ের মধ্যে মনোমালিন্যের জেরে মূলত এক ঘরে দুই প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন। ভোটারদের আলোচনা এখন সরগরম তাঁদের লড়াই নিয়ে। সকালে একজন ভোট চাইলে বিকেলে চাইছেন আরেকজন।

প্রচারণায় ব্যস্ত থাকায় সুলতানা এবং হাওয়ারুনের সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

তবে সুলতানার স্বামী আবুল কালাম বলেন, তাঁদের ভালো লেগেছে, তাই নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। তাঁর ছোট ভাই আবদুল মজিদ মায়ের পক্ষে কাজ করছেন বলেও তিনি জানিয়েছেন।

তবে আবদুল মজিদ দাবি করেছেন, পারিবারিক টানাপোড়নের জেরেই সম্ভবত তাঁর মা ও ভাবি প্রার্থী হয়েছেন। তবে তিনি দীর্ঘদিন ধরে সিলেট শহরে বসবাস করায় পুরো বিষয়ে অবগত নন। তিনি কারও পক্ষেই কাজ করছেন না বলে জানিয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন