default-image

ভোলায় বাবা হত্যার দায়ে এক ছেলেকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে ভোলা জেলা ও দায়রা জজ এ বি এম মাহমুদুল হক এ রায় প্রদান করেন। নিহত ব্যক্তির নাম আবদুল মুনাফ সাজি। আসামি তাঁর ছেলে আবু সায়েদ ওরফে সাঈদ। এই হত্যা মামলার বাদী ছিলেন নিহত মুনাফের আরেক ছেলে আ. রব।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) সৈয়দ আশরাফ হোসেন লাবু। আসামিপক্ষের আইনজীবী ছিলেন স্বপন কৃষ্ণ দে।

মামলার নথি থেকে জানা গেছে, ভোলা সদর উপজেলার পূর্ব ইলিশা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের চরানন্দ পার্ট-ওয়ান গ্রামে আবদুল মুনাফ সাজির পরিবার বসবাস করে। ২০১৭ সালের ২৩ আগস্ট বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বাড়ি থেকে খেতের উদ্দেশে আবদুল মুনাফ বেরোচ্ছিলেন। এ সময় বাড়ির সামনে ছেলে আবু সায়েদ তাঁর বাবার পথ রোধ করেন। এ সময় বাবাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাটি খোঁড়ার লোহার খন্তা দিয়ে আঘাত করেন। এতে খন্তার ফলার আঘাতে মুনাফের মাথার পেছন দিকে স্নায়ু কেটে গভীর ক্ষত ও রক্তক্ষরণ হয়।

২০১৭ সালের ২৩ আগস্ট বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বাড়ি থেকে খেতের উদ্দেশে আবদুল মুনাফ বেরোচ্ছিলেন। এ সময় বাবাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ছেলে আবু সায়েদ মাটি খোঁড়ার লোহার খন্তা দিয়ে আঘাত করেন। এতে খন্তার ফলার আঘাতে মুনাফের মাথার পেছন দিকে স্নায়ু কেটে গভীর ক্ষত ও রক্তক্ষরণ হয়।

পরে স্থানীয় ব্যক্তিদের সহযোগিতায় পরিবারের সদস্যরা আহত ব্যক্তিকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরদিন ২৪ আগস্ট তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার আরও অবনতি হলে বরিশালের চিকিৎসকেরা মুনাফকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ২৫ আগস্ট ঢাকায় নেওয়ার পথে ফার্মগেট এলাকায় বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে মুনাফ মারা যান। ২৬ আগস্ট ভোলা সদর থানায় হত্যা মামলা গৃহীত হয়।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন