default-image

শেরপুরের নকলা উপজেলায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীর (১৫) বাল্যবিবাহ বন্ধ হয়েছে। একই সঙ্গে বাল্যবিবাহ দেওয়ার চেষ্টার দায়ে ওই ছাত্রীর বাবাকে ১০ হাজার অর্থদণ্ড করা হয়েছে। শনিবার রাতে উপজেলার একটি গ্রামে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাউছার আহাম্মেদ এই অভিযান পরিচালনা করেন।

বিজ্ঞাপন

উপজেলা প্রশাসন ও ভ্রাম্যমাণ আদালত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, কিশোরী মেয়েকে বিয়ে দেওয়া হচ্ছে—এমন সংবাদের ভিত্তিতে মেয়েটির বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় প্রশাসনের উপস্থিতি টের পেয়ে বরপক্ষের লোকজন কৌশলে পালিয়ে যান। বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনে কিশোরীর বাবাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সেই সঙ্গে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত মেয়েকে কোথাও বিয়ে দেবেন না মর্মে মেয়েটির বাবার কাছ থেকে মুচলেকা নেওয়া হয়েছে।

রোববার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাউছার আহাম্মেদ প্রথম আলোকে বলেন, কয়েক বছর আগেই জেলার নকলা উপজেলাকে বাল্যবিবাহমুক্ত উপজেলা হিসেবে ঘোষণা করা হয়। তাই বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

মন্তব্য পড়ুন 0