বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওই বৃদ্ধার নাম সেফাতন নেছা খান (৯০)। তিনি ওই গ্রামের মৃত সিরাজ খানের স্ত্রী। তাঁর নাতির নাম মঞ্জুর হোসেন (২৫)। তিনি সেফাতন নেছার ছেলে মনসুর আলীর সন্তান।
স্থানীয় কয়েক বাসিন্দা বলেন, মঞ্জুর মাদকাসক্ত। তিনি নেশা করার জন্য দাদির কাছে টাকা চেয়েছিলেন। টাকা না পেয়ে তিনি এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন ধারণা করছেন।

মধুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারিক কামাল জানান, সেফাতন নেছা বাড়িতে একা ছিলেন। দুপুর ১২টার দিকে নাতি মঞ্জুর হোসেন তাঁর কাছে টাকা দাবি করেন। সেফাতন নেছা টাকা দিতে অস্বীকার করলে কথা–কাটাকাটির একপর্যায়ে মঞ্জুর প্রথমে কুপিয়ে সেফাতন নেছাকে আহত করেন। পরে তাঁকে গলা কেটে হত্যা করেন। এ সময় সেফাতন নেছার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসার পর মঞ্জুর পালিয়ে যান।

ওসি তারিক কামাল আরও জানান, খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ গেছে। তারা অভিযুক্ত মঞ্জুর হোসেনকে আটকের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন