বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, গতকাল দুপুরে গোপালপুর গ্রামের এক কৃষক তাঁর নিজের বেগুনখেত পরিচর্যা করতে গিয়ে খেতের মধ্যে এক নারীর লাশ দেখতে পান। লাশের গায়ে কম্বল ছিল। সেই কম্বলের কিছুটা অংশ তাঁর মুখের ভেতরে ঢুকিয়ে দেওয়া ছিল। বাঁ হাঁটু ভাঙা। পাশে পড়ে ছিল নাইলনের রশি। পরে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেন। বিকেলে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। সন্ধ্যায় লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

ওই নারীর এক চাচা বলেন, ওই নারী মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। কখনো মনিরামপুর বাজারে, আবার কখনো গোপালপুর বাজারে তিনি থাকতেন। ভিক্ষা করে তাঁর দিন চলত।

মনিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর-ই-আলম সিদ্দীকি বলেন, গতকাল সন্ধ্যায় ওই নারীর লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। তাঁর গলায় দাগ রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তাঁকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। আজ সকালে ময়নাতদন্তের জন্য তাঁর লাশ যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পরই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন