default-image

শেরপুর পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিত প্রার্থীদের সমর্থকেরা দোকানপাট ভাঙচুর করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বুধবার রাতে শহরের রঘুনাথ বাজার ও মুন্সিবাজার এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, মেয়র পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া। এই খবর পেয়ে বুধবার রাত ১০টার দিকে মনোনয়নবঞ্চিত আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তারা লাঠি, লোহার রড ও হকিস্টিক দিয়ে শহরের রঘুনাথ বাজার ও মুন্সিবাজার এলাকার বিভিন্ন দোকানপাট ভাঙচুর করে। তারা অন্তত ১০টি দোকান ভাঙচুর করেছে। তাদের হামলায় তিনজন আহত হয়েছেন।

আহত ব্যক্তিদের মধ্যে শহরের মুন্সিবাজার এলাকার অনন্যা স্টেশনারির মালিক ইন্দ্রজিৎ নন্দীকে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অপর দুজন স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। হামলার সময় আতঙ্কে শহরের অধিকাংশ দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। পরে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

বিজ্ঞাপন

আজ বৃহস্পতিবার শেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, হামলার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন। পরিস্থিতি বর্তমানে পুলিশের নিয়ন্ত্রণে আছে।

শেরপুর পৌরসভার মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে অন্যরা ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ারুল হাসান, সাংস্কৃতিকবিষয়ক সম্পাদক আনিসুর রহমান, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক রফিকুল ইসলাম ও শ্রমবিষয়ক সম্পাদক আরিফ রেজা। আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি শেরপুর পৌরসভার নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

অভিযোগের বিষয়ে আনিসুর রহমান বলেন, তিনি বর্তমানে ঢাকায় অবস্থান করছেন। কে বা কারা হামলা–ভাঙচুর করেছেন, তিনি জানেন না।

এদিকে শ্রীবরদী পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন দলের প্রবীণ নেতা মোহাম্মদ আলী।

মন্তব্য করুন