বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মুয়াজ্জিন পারভেজ হাসান জানান, আজ শুক্রবার ভোরে আজান দেওয়ার জন্য মসজিদে ঢুকতে গিয়ে দরজার সামনে ভাঙা দানবাক্স ও বারান্দার এক পাশে রক্তমাখা একটি লাশ দেখতে পান। পরে স্থানীয় লোকজনকে জানালে তাঁরা পুলিশে খবর দেন। সকালে লাশের পরিচয় শনাক্ত করে জিয়াসমিন আক্তার নামের এক নারী জানান, লাশটি তাঁর ভাইয়ের।

জিয়াসমিন জানান, শরীফুল দীর্ঘদিন ধরে ক্রিকেট খেলার বাজি ধরতেন। বিভিন্ন সময় এলাকাবাসী তাঁর বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগও করেন। এ কারণে কিছুদিন আগে তাঁকে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়। এরপর থেকে শরিফুল রাতে বিভিন্ন মসজিদে ঘুমাতেন। জিয়াসমিন তাঁর ভাইয়ের হত্যার বিচার দাবি করেন।

লাশের সুরতহাল করে ভোলাব তদন্ত কেন্দ্রের উপপরিদর্শক আমিনুল ইসলাম বলেন, মসজিদের বারান্দার এক পাশে লুঙ্গি দিয়ে লাশের মাথা ঢাকা ছিল। শরীফুলের মাথা থেঁতলে দেওয়া হয়েছে। লাশের গলায় তার প্যাঁচানো ছিল। লাশের পাশে সিমেন্টের একটি ব্লক ছিল। এ ছাড়া মসজিদের দুটি দানবাক্স ভাঙা অবস্থায় পাওয়া গেছে।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম সায়েদ বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জের জেনারেল হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। নিহতের বড় ভাই ইয়াকুব মিয়া বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় একটি মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন