বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হ্নীলা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য বেলাল উদ্দিন বলেন, গতকাল ভোররাতে স্থানীয় লোকজন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল মোস্তফার বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল করেছেন। ওই দিনের ঘটনায় তিনিও আহত হয়েছিলেন। ঘটনার ইন্ধনদাতা ছিলেন ছাত্রলীগের ওই নেতা। তাই তাঁকেসহ ২৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল মোস্তফা প্রথম আলোকে বলেন, মাইকে ঘোষণা দিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি দেখে স্থানীয় প্রশাসনকে জানানো হয়েছিল। পরে টেকনাফ থানার ওসির নেতৃত্বে পুলিশ ও র‍্যাবের পৃথক দল ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তিনি বলেন, ‘আমি সরকারদলীয় ছাত্রসংগঠনের একজন নেতা। এ ঘটনায় আমাকে আসামি করে মামলা করা এটি রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের একটি ষড়যন্ত্র বলে মনে করছি। এ ঘটনায় আমি কোনোভাবেই জড়িত নই। বিষয়টি প্রশাসন সুষ্ঠুভাবে তদন্ত করবে বলে আশা করছি।’

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হাফিজুর রহমান বলেন, বাদীর করা এজাহারটি প্রাথমিক তদন্ত শেষে মামলা হিসেবে নেওয়া হয়েছে। এজাহারভুক্ত আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এর আগে শুক্রবার জুমার নামাজের পর টেকনাফে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে সংঘর্ষে জড়ায় দুই পক্ষ। এতে পুলিশের ২ সদস্যসহ উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হন। উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের মৌলভীবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ ও র‍্যাব এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন