default-image

নারায়ণগঞ্জ শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকায় মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় দগ্ধ আরও দুজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৩ জনে। শনিবার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক।

বিজ্ঞাপন

এই দুজন হলেন আবদুল আজিজ (৪০) ও ফরিদ মিয়া (৪০)। আবদুল আজিজ পশ্চিম তল্লা এলাকার বাসিন্দা। আর ফরিদ মিয়ার বাড়ি ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার ডাঙ্গুরিয়া এলাকায়। তিনি সেখানকার ওমেদ আলী মসজিদের খাদেম ছিলেন। তিনি পশ্চিম তল্লা এলাকায় মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন।

ইউএনও নাহিদা বারিক বলেন, মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় আবদুল আজিজের শরীরের ৪৭ শতাংশ ও শ্বাসনালি পুড়ে যায়। তিনি শনিবার সকালে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। দুপুরে মারা যান ফরিদ মিয়া। ওই ঘটনায় শনিবার পর্যন্ত মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক হান্নান সাউদ, ইমাম আবদুল মালেকসহ ৩৩ জনের মৃত্যু হলো। শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন আছেন ৩ জন। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানান তিনি।

৪ সেপ্টেম্বর রাতে শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

মন্তব্য পড়ুন 0