বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে গত দুই বছরের ঈদ উদ্‌যাপনের স্মৃতি তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারির কারণে আমরা গত দুই বছর ঈদ আনন্দ থেকে বঞ্চিত ছিলাম। এ বছর করোনার ভয়াবহতা হ্রাস পাওয়ায় অনেকটা স্বস্তিতে এবং আনন্দ-উৎসবে ঈদ উদ্‌যাপন করতে পারব। বর্তমান সরকারের সময়ে দেশের মহাসড়কগুলোর ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। যার কারণে এবার উত্তরবঙ্গগামী মানুষের ঈদযাত্রা অনেক স্বস্তিদায়ক হবে।’

প্রতিবছরই ঈদের সময় ঢাকা–টাঙ্গাইল মহাসড়ক উত্তরবঙ্গগামী যাত্রীদের ভোগান্তি হয়ে দাঁড়ায়। উন্নয়নের কারণে এবার চিত্র পাল্টে গেছে বলে জানালেন আ ক ম মোজাম্মেল। তিনি বলেন, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুরের নাওজোড় ও কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুর বাজারে দুটি উড়ালসড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। কাজ শেষ না হলেও ঈদযাত্রার কথা চিন্তা করে দুটি উড়ালসড়কই খুলে দেওয়া হয়েছে। সেখানে এখন কোনো যানজটের খবর পাওয়া যায়নি। একসঙ্গে অনেক মানুষ যাত্রা শুরু করায় কোথাও কোথাও চাপ হতে পারে, কিন্তু যানজট হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।

গাজীপুরের পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন সাংসদ সিমিন হোসেন, সাংসদ ইকবাল হোসেন, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মো. বরকতউল্লাহ, পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি নূরে আলম, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমান, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমতউল্লা খান প্রমুখ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন