বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওই অটোরিকশার আরেক যাত্রী সোহরাব হোসেন বলেন, তাঁদের সবার বাড়ি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার আরাবপুরে। তাঁরা যশোরে এসেছিলেন পিকনিকের জন্য বাস ভাড়া করতে। কাজ শেষে তাঁরা বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনায় পড়েন।

হাইওয়ে পুলিশ জানায়, শনিবার বিকেলে ডিজেলচালিত একটি অটোরিকশা যশোর থেকে যাত্রী নিয়ে যশোর-ঝিনাইদহ মহাসড়ক দিয়ে ঝিনাইদহে যাচ্ছিল। বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে অটোরিকশাটি যশোর সদর উপজেলার সাতমাইল এলাকায় কাজী নজরুল ইসলাম কলেজের সামনে পৌঁছায়। এ সময় উঁচু–নিচু মহাসড়কের ওপর অটোরিকশাটি উল্টে পড়ে। এরপর একটি ট্রাক ওই অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে ইউসুফ আলী মারা যান। গুরুতর আহত অবস্থায় রুহুল আমিনকে যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানে তিনি মারা যান।

বারোবাজার হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মেজবাহ উদ্দিন বলেন, মহাসড়কে উল্টে পড়া অটোরিকশাকে ট্রাকের ধাক্কায় দুজন নিহত হয়েছেন। তাঁদের একজন ঘটনাস্থলে এবং অপরজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। ট্রাকটি পালিয়ে গেছে। ট্রাকটি শনাক্ত করে আটকের চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন