default-image

কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার বড় মহেশখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অফিসে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছেন হেফাজতে ইসলামের সমর্থকেরা। গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার বড় মহেশখালী নতুন বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

এ ছাড়া ওই রাতে উপজেলা প্রশাসন ও থানায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ করার পাশাপাশি হেফাজতের ইসলামের সমর্থকেরা দুটি বৌদ্ধমন্দিরে হামলা চালানোর চেষ্টা করেন। এ সময় কালারমারছড়া ইউনিয়নের নয়াপাড়ায় তাঁদের ছোড়া ইটের আঘাতে তিন পুলিশ সদস্য আহত হন।

পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় আজ রোববার থানায় একটি মামলা হয়েছে। এ সম্পর্কে মহেশখালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আসিফ ইকবাল বলেন, পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় উপপরিদর্শক (এসআই) আবু বক্কর বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ৩০০ জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে বলছে, গতকাল রাতে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক আটক হয়েছেন—এমন খবর পেয়ে মহেশখালী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় লাঠিসোঁটা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেন হেফাজতে ইসলামের সমর্থকেরা। রাত সাড়ে নয়টার দিকে বড় মহেশখালী নতুন বাজার থেকে একটি মিছিল বের হয়ে প্রধান সড়ক দিয়ে পৌর এলাকায় যায়। পৌর এলাকার সড়ক প্রদক্ষিণ করে হেফাজতে ইসলামের সমর্থকেরা ইউএনও কার্যালয়ের ফটকে গিয়ে হামলা চালান। তাঁদের ছোড়া ইটপাটকেলে উপজেলা পরিষদ ভবনে কয়েকটি কাচের জানালা ভাঙচুর হয়েছে বলে জানান ইউএনও মোহাম্মদ মাহফুজুর রহমান। পরে তাঁরা থানায় গিয়েও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন।

বিজ্ঞাপন

হেফাজতের সমর্থকেরা রাত সাড়ে ১০টার দিকে বড় মহেশখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অফিসে হামলা চালান। একপর্যায়ে তাঁরা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের ভেতরে ঢুকে আসবাবপত্র ভাঙচুর ও আগুন ধরিয়ে দেন। এ ঘটনায় গতকাল রাতে উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক তারেক রহমানকে আটক করে পুলিশ।

এদিকে, গতকাল রাত সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার কালারমারছড়া বাজারে হামলা চালান হেফাজতের সমর্থকেরা। এ সময় তাঁরা বাজারে অলিগলিতে টাঙানো আওয়ামী লীগের ব্যানার আগুনে পুড়িয়ে দেন। পরে কালারমারছড়া ইউনিয়নের মাইজপাড়া মারাক্কাঘোনা যুবলীগের নেতা কলিম উল্লাহর বাড়িতে হামলা চালান তাঁরা। খবর পেয়ে মহেশখালী থানার পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলের উদ্দেশে রওনা হন। ইউনিয়নের নয়াপাড়া এলাকায় পৌঁছালে পুলিশ সদস্যদের ওপর হামলা করেন হেফাজতের সমর্থকেরা। তাঁদের ছোড়া ইটপাটকেলের আঘাতে তিন পুলিশ সদস্য আহত হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ছয়টি ফাঁকা গুলি ছোড়ে।

বাংলাদেশ বৌদ্ধ সমিতির কক্সবাজার জেলার সাধারণ সম্পাদক জেমসন বড়ুয়া বলেন, গতকাল রাতে হেফাজতে ইসলামের সমর্থকেরা কালারমারছড়া ইউনিয়নের উত্তরনলবিলা কেন্দ্রীয় সৈকত বৌদ্ধবিহার ও নবাঙনকুর বৌদ্ধবিহারে হামলা চালানোর চেষ্টা করেন। তাঁরা দুটি মন্দিরে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন। পরে এলাকাবাসী এগিয়ে আসায় তাঁরা মন্দিরে হামলা চালাতে পারেননি।

মহেশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল হাই বলেন, এলাকার পরিস্থিতি বেশ শান্ত রয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের ধরার জন্য পুলিশ নানাভাবে চেষ্টা করছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন