বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আক্তারের পরিবারের ভাষ্য, আক্তারের ছেলের সঙ্গে নাসির উদ্দিনের মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিষয়টি জানার পর নাসিরের পরিবার ক্ষুব্ধ হয়। গতকাল সন্ধ্যায় নাসিরের ছেলে মোহাম্মদ জামাল উদ্দিনসহ তাঁর সহযোগীরা আক্তার আহমেদের বাড়িতে হামলা চালান। একপর্যায়ে তাঁরা বাড়ির ভেতর ঢুকে আক্তার আহমেদের স্ত্রীকে মারধর করেন। এ সময় আক্তার আহমেদ তাঁর স্ত্রীকে রক্ষা করতে গেলে প্রতিপক্ষের রডের আঘাতে গুরুতর আহত হন তিনি।

পরে পরিবারের লোকজন আক্তার আহমেদকে উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল দিবাগত রাত তিনটার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়।

ঘটনার পর থেকে নাসির ও তাঁর ছেলে জামাল পলাতক। তাই এ বিষয়ে তাঁদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। আজ সকালে এলাকাবাসী নাসিরের স্ত্রী খতিজা বেগমকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছেন।

জানতে চাইলে মহেশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবদুল হাই প্রথম আলোকে বলেন, আক্তার আহমেদ নিহতের ঘটনায় খতিজাকে আটক করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় থানায় এখনো কোনো মামলা হয়নি। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের ধরতে পুলিশের অভিযান চলছে। নিহত ব্যক্তির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন