মহেশপুর সীমান্তে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে কমিটি হবে

বিজ্ঞাপন
default-image

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার ভারত সীমান্তবর্তী গ্রামগুলো দিয়ে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) সম্মেলনকক্ষে আইনশৃঙ্খলা সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ জন্য সীমান্তবর্তী ইউনিয়ন পরিষদগুলোর (ইউপি) চেয়ারম্যানদের নেতৃত্বে কমিটি গঠনের জন্য বলা হয়েছে, কমিটি সীমান্ত এলাকায় অপরিচিত কোনো ব্যক্তি দেখলেই নিকটবর্তী বিজিবির সদস্যদের খবর দেবে।

মহেশপুরের ইউএনওর দায়িত্বে থাকা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুজন সরকারের সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন, মহেশপুর থানার ওসি (তদন্ত) আমান উল্লাহ, ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম, বি এম সেলিম রেজা, আরিফান হাসান চৌধুরী, ইসমাইল হোসেন, সিরাজুল ইসলাম, ৫৮ বিজিবির জলুলী ক্যাম্পের সুবেদার মাহবুবুর রহমান, শ্রীনাথপুর ক্যাম্পের কমান্ডার কামরুল ইসলাম, কুশুমপুর ক্যাম্পের কমান্ডার নায়েক সুবেদার আবুল হোসেন প্রমুখ।

সুবেদার মাহবুবর রহমান সভায় জানান, বর্তমানে ভারত থেকে বিপুলসংখ্যক নারী-পুরুষ বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করছে। মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে স্থানীয় জনগণের সহযোগিতা প্রয়োজন। বিষয়টি নিয়ে সভায় বিস্তারিত আলোচনা হয়। পরে সীমান্তবর্তী ইউপি চেয়ারম্যানদের অনুপ্রবেশ ঠেকাতে কমিটি গঠন করে বিজিবিকে সহযোগিতা করার সিদ্ধান্ত হয়।

পান্তাপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ইসমাইল হোসেন জানান, আইনশৃঙ্খলার সভায় বিজিবির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ভারত থেকে অবৈধভাবে মানুষ এ দেশে ঢুকছে। যে কারণে সভায় সীমান্তবর্তী ইউনিয়নের ওয়ার্ডগুলোতে কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ফতেপুর ইউপির চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম জানান, ‘বিষয়টি নিয়ে আমাদের সবার সতর্ক থাকতে হবে।’

সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুজন সরকার জানান, ইউপি সদস্যদের প্রধান করে এই কমিটি গঠন করা হবে। তারা অবৈধ অনুপ্রবেশ দেখলেই বিজিবিকে খবর দেবে, পাশাপাশি এলাকার মানুষকে সচেতন করবে।

মহেশপুরের খালিশপুর ৫৮ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল কামরুল আহসান জানান, বৃহস্পতিবার নতুন করে কোনো আটক নেই। বিজিবির পক্ষ থেকে তাঁরা কমিটি গঠনের বিষয়টি খোঁজ রাখবেন।

ঝিনাইদহের মহেশপুরে ভারত সীমান্তে হঠাৎ করে অনুপ্রবেশ বৃদ্ধি নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রথম আলোয় একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এ নিয়ে প্রশাসনের মধ্যে তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। সীমান্তে কড়া নজরদারি রয়েছে বিজিবির।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন