default-image

দ্বিতীয় বিয়েতে রাজি না থাকায় কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায় মাকে হত্যার দায়ে ছেলেকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ আবদুল মান্নান এ রায় দেন।

দণ্ড পাওয়া ব্যক্তি হলেন মন্তাজুল আলম (৩৬)। তিনি উমরপান্থাবাড়ি গ্রামের সোলায়মান আলী ও মেহেরজান বেগমের (৫৮) ছেলে।

বিজ্ঞাপন
স্ত্রী ছেড়ে চলে যাওয়ায় মন্তাজুল দ্বিতীয়বার বিয়ে করতে চান। এতে তাঁর মা মেহেরজান রাজি ছিলেন না। এতে খেপে গিয়ে ২০২০ সালের ২০ মার্চ দুপুরে মেহেরজানকে কুড়াল দিয়ে উপর্যুপরি কোপান মন্তাজুল।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, স্ত্রী ছেড়ে চলে যাওয়ায় মন্তাজুল দ্বিতীয়বার বিয়ে করতে চান। এতে তাঁর মা মেহেরজান রাজি ছিলেন না। এতে খেপে গিয়ে ২০২০ সালের ২০ মার্চ দুপুরে মেহেরজানকে কুড়াল দিয়ে উপর্যুপরি কোপান মন্তাজুল। এতে ঘটনাস্থলেই মেহেরজান নিহত হন। আশপাশের লোকজন মন্তাজুলকে আটক করে পুলিশে দেন। এ ঘটনায় মন্তাজুলকে আসামি করে রাজারহাট থানায় মামলা করেন সোলায়মান আলী। সাক্ষ্য–প্রমাণ শেষে আজ রায় দেন আদালত। এ সময় আদালতে মন্তাজুল উপস্থিত ছিলেন।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) আব্রাহাম লিংকন। আসামিপক্ষে আইনজীবী ছিলেন এরশাদুল হক।

মন্তব্য করুন