default-image

জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায় এক যুবকের বিরুদ্ধে তাঁর মাকে মারধর ও বাবাকে ছুরিকাঘাতের হত্যা অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছুরিকাঘাত ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়।

মারা যাওয়া ওই ব্যক্তির নাম মো. ওয়াহাব আলী (৫৫)। তাঁর বাড়ি উপজেলার চরবানিপাকুরিয়া ইউনিয়নের আটাবাড়ি গ্রামে। তিনি ঢাকায় শ্রমিকের কাজ করতেন। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই যুবক হলেন মো. রিপন মিয়া (২৬)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পারিবারিক কলহের জেরে গত বুধবার মো.রিপন মিয়া তাঁর মা নইলে বেগমকে (৪৮) মারধর করেন। এতে তাঁর মায়ের হাত ভেঙে যায়। খবর পেয়ে তাঁর বাবা মো.ওয়াহাব আলী ঢাকা থেকে বৃহস্পতিবার গ্রামের বাড়িতে আসেন। মারধরের বিষয় নিয়ে ওই দিন বিকেলে ছেলের সঙ্গে তাঁর ঝগড়া হয়। এতে রিপন ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁর বাবাকে ছুরিকাঘাত করেন। স্থানীয় লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল সন্ধ্যার দিকে ওয়াহাব আলী মারা যান।

মেলান্দহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এম ময়নুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ছেলের ছুরিকাঘাতে বাবার মৃত্যুর ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো কোনো মামলা হয়নি। পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ দেওয়া না হলেও ময়নাতদন্তের পর পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করবে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন