default-image

মাগুরায় আরও দুজনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। মাগুরা সিভিল সার্জন কার্যালয় আজ রোববার এ তথ্য জানিয়েছে।

দুজনের একজন (২৫) শ্রীপুর উপজেলার গার্মেন্টস কর্মী। ২০ এপ্রিল তিনি নরসিংদী থেকে মাগুরায় আসেন। অন্যজন (২৫) জেলার শালিখা উপজেলার একটি মসজিদের ইমাম। তবে তাঁর বাড়ি শালিখার সীমান্তবর্তী যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলায়।

মাগুরা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানিয়েছে, গতকাল শনিবার তাদের নমুনা সংগ্রহ করে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছিল। আক্রান্ত দুজনই সুস্থ আছেন এবং বাড়িতে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। তাদের করোনা শনাক্ত হওয়ার পর ওই দুই উপজেলার দুটি গ্রাম লকডাউন করা হয়েছে।

মাগুরা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানিয়েছে, শ্রীপুরের ওই যুবকের শরীরে কোনো উপসর্গ নেই। শারীরিকভাবেও তিনি সুস্থ আছেন। এর আগে ২২ ও ২৩ এপ্রিল সদর ও শ্রীপুর উপজেলায় প্রথমবারের মতো দুজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়। তাঁরা দুজনও গার্মেন্টসকর্মী। ১৮ এপ্রিল আশুলিয়া থেকে মাগুরায় আসেন তাঁরা। তাদের শরীরেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার কোনো উপসর্গ নেই। তাঁরা এখন পর্যন্ত সুস্থ আছেন।

ইমামের বিষয়ে শালিখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তানভীর রহমান বলেন, তিনি গতকাল সর্দি– কাশি নিয়ে শালিখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন। সন্দেহ হওয়ায় তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় তিনি যে গ্রামে অবস্থান করছেন সেই গ্রাম লকডাউন করা হয়েছে। আর ওই মসজিদে কারা নামাজ আদায় করেছেন, তাদের খুঁজে বের করা হচ্ছে।

মাগুরার সিভিল সার্জন প্রদীপ কুমার সাহা প্রথম আলোকে এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে এই জেলায় আক্রান্তদের মধ্যে উপসর্গ না থাকার বিষয়টি উদ্বেগজনক বলে তিনি উল্লেখ করেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন