default-image

মাগুরা সদর উপজেলায় যুবককে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। কাজল মিয়া (২৮) নামের ওই ব্যক্তিকে আজ সোমবার ভোরে গ্রেপ্তার করে মাগুরা সদর থানার পুলিশ। উদ্ধার করা হয়েছে হত্যায় ব্যবহৃত ধারালো দা। আজ বেলা ১১টায় মাগুরা সদর থানা চত্বরে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছে জেলা পুলিশ।

হত্যার ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার সাচানি গ্রামে। গতকাল রোববার সকাল ১০টার দিকে ওই গ্রামের আবুল কালাম মিয়ার ছেলে কাজল একই গ্রামের দাউদ মোল্লার ছেলে মাসুদ মোল্লাকে (৩২) দা নিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে তাড়া করেন। এর মাঝে মাসুদকে কোপও দেন কাজল। এ সময় প্রাণে বাঁচতে মাসুদ দৌড়ে নিজ বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিলেন। কিন্তু বাড়ির উঠানেই ফের তাঁকে কুপিয়ে পালিয়ে যান আসামি কাজল। বেলা ১১টার দিকে আহত মাসুদকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে অস্ত্রোপচারকক্ষে পাঠানো হয়। কিছুক্ষণ পর সেখানেই মারা যান তিনি।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কামরুল হাসান জানান, পূর্বশত্রুতার জের ধরে মাসুদ মোল্লাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় গতকাল রাতেই নিহত ব্যক্তির বাবা বাদী হয়ে কাজল মিয়াসহ তিনজন আসামির নাম উল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা করেন। ওই দিন গভীর রাতেই মামলার প্রধান আসামি কাজলকে ধরতে অভিযান চালায় পুলিশ। ভোরে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার একটি গ্রাম থেকে কাজলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত কাজল মিয়া হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত কাজল মিয়া হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, আসামি কাজল মিয়াকে আদালতে পাঠানো হচ্ছে। মামলার অন্য দুই আসামিকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন মাগুরা সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কাজী আহসান হাবীব, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জয়নাল আবেদিন প্রমুখ।

মন্তব্য পড়ুন 0