default-image

যশোরের মনিরামপুরে নিখোঁজ হওয়ার এক দিন পর এক নারীর ক্ষতবিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ সোমবার বেলা একটার দিকে উপজেলার কুচলিয়া গ্রামের একটি মাছের ঘেরের পাড় থেকে তাঁর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত ওই নারীর নাম দেবী টিকাদার (৩৭)। তিনি মনিরামপুর উপজেলার কুচলিয়া গ্রামের পীযূষ কান্তি টিকাদারের স্ত্রী। গত শনিবার সন্ধ্যা থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন।
পুলিশ জানায়, বাড়ির পাশে মাছের ঘেরের পাড়ে মরদেহটি পড়ে ছিল। মরদেহের বুক, থুতনি ও হাঁটুতে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পুলিশের ধারণা, তাঁকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

দেবী টিকাদারের শ্বশুর শ্রীকৃষ্ণ টিকাদার জানান, তাঁর ছেলে পীযূষ কান্তি টিকাদার তরকারি বিক্রেতা। পাশেই অভয়নগর উপজেলার সুন্দলী বাজারে তিনি তরকারি বিক্রি করেন। তাঁদের বাড়িটি ফাঁকা জায়গায়। গত শনিবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে তাঁর ছেলের বউ পাশের গ্রামের এক ব্যক্তির বাড়িতে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর তিনি আর বাড়িতে ফিরে আসেননি। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাঁর কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। আজ সোমবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে বাড়ির পাশে একটি মাছের ঘেরের পাড়ে তাঁর লাশ পাওয়া গেছে। তাঁর শরীরের বিভিন্ন জায়গায় বেশ কয়েকটি কোপের দাগ রয়েছে।

মনিরামপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান দুপুরে বলেন, দেবী টিকাদারের মরদেহের বুক, থুতনি ও হাঁটুতে ধারালো অস্ত্রের কোপের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, তাঁকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। হত্যার কারণ উদ্‌ঘাটন ও হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন