default-image

প্রেমের টানে জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার এক কিশোরী সীমান্ত পাড়ি দিয়ে ভারতে চলে যায়। অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের অভিযোগে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) হাতে আটক হয় ওই কিশোরী। অবশেষে ওই কিশোরীকে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মাধ্যমে পুলিশের কাছে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ।

আজ শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ ওই কিশোরীকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে। কিশোরীর বাড়ি দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার পাররামপুর ইউনিয়নের একটি গ্রামে। তার বাবা পেশায় কৃষক।

বিজিবি ও উপজেলার বকশীগঞ্জ থানা–পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার উত্তর রহিমপুর এলাকায় একটি মাজার আছে। সেখানে বাংলাদেশি ও ভারতীয় বাসিন্দাদের যাতায়াত রয়েছে। কয়েক মাস আগে ওই মাজারে কিশোরীর সঙ্গে ভারতীয় সীমান্তবর্তী একটি এলাকার যুবকের সাক্ষাৎ হয়। সেখান থেকে তাঁদের পরিচয়। তাঁরা প্রায়ই ওই মাজারে দেখা করতেন। একপর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে কিশোরী ওই যুবকের সঙ্গে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে ভারতে চলে যায়। তাঁরা দুজন সীমান্ত পাড়ি দিয়ে সড়কে উঠলে বিএসএফের সদস্যরা আটক করেন।

কিশোরীর পরিচয় জেনে বিজিবির সঙ্গে যোগাযোগ করে বিএসএফ। বৃহস্পতিবার রাতে বকশীগঞ্জ-কামালপুর সীমান্তে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে পুলিশের কাছে ওই কিশোরীকে ফেরত দেওয়া হয়। রাতে কিশোরী বকশীগঞ্জ থানা-পুলিশের হেফাজতে ছিল। বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন