বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ছাগলের মালিক লোকমান মালত বলেন, ঘাস খাওয়ার জন্য বাড়ির পাশের রাস্তার ধারে তিনি ছাগলটিকে বেঁধে রাখেন। হঠাৎ করে একটি সাদা প্রাইভেট কার থেকে এক লোক নেমে তাঁর ছাগলটিকে গাড়িতে উঠিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় তাঁরা ধাওয়া করেন এবং পথিমধ্যে পুলিশ এসে প্রাইভেট কারসহ তুহিনকে ধরে ফেলেন। লোকমান মালত এর বিচার চান।

তবে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত নন বলে দাবি করেছেন আটক ছাত্রলীগ নেতা তুহিন দরজি। তিনি বলেন, নিজের প্রাইভেট কারে করে তিনি কাজে যাচ্ছিলেন। মিথ্যা অভিযোগে পুলিশ তাঁকে ধরেছে।

এদিকে এলাকাবাসী জানান, গত দুই মাসে ওই এলাকা থেকে আরও পাঁচটি গৃহপালিত ছাগল খোয়া গেছে। তুহিন ও তাঁর সহযোগীরাই এই চুরির সঙ্গে জড়িত বলে অভিযোগ স্থানীয় লোকজনের।

default-image

মাদারীপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদ হোসেইন অনিক বলেন, দোষী প্রমাণিত হলে তুহিন দরজির বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিষয়টিতে ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) শহিদুল ইসলাম বলেন, ছাগল চুরির অভিযোগে পখিরা এলাকা থেকে পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। কাল শুক্রবার তাঁদের আদালতে পাঠানো হতে পারে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন