বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভুক্তভোগী দুই ছাত্রী সপ্তম শ্রেণিতে পড়ে। তারা সহপাঠী ও প্রতিবেশী। আলমডাঙ্গা থানা-পুলিশ তাদের দুজনকে আজ মঙ্গলবার চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়েছে। এরপর তারা আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দেয়।

একটি মোটরসাইকেলে করে ওই দুই ছাত্রীকে পার্শ্ববর্তী ওসমানপুর-হারদী মাঠের কানাপুকুর এলাকায় তুলে নিয়ে গিয়ে সেখানে অভিযুক্ত দুই কিশোর তাদের জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

ধর্ষণ মামলার আসামি দুই কিশোর ঘনিষ্ঠ বন্ধু। তাদের বাড়ি একই এলাকায়। আজ দুপুর পর্যন্ত পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি। আলমডাঙ্গা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, পূর্বপরিচয়ে সূত্র ধরে রোববার রাত আটটায় এক কিশোর মুঠোফোনে দুই বান্ধবীকে ডেকে নেয়। ওই কিশোর একটি মোটরসাইকেলে করে তাদেরকে পার্শ্ববর্তী ওসমানপুর-হারদী মাঠের কানাপুকুর এলাকায় তুলে নিয়ে যায় এবং সেখানে অপর কিশোরের সঙ্গে দুজন তাদের জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ধর্ষণ শেষে রাত দুইটায় ওই দুই ছাত্রীকে তাদের বাড়ির কাছাকাছি মোটরসাইকেলে রেখে যায়। ওই দুই ছাত্রী বাড়ি ফিরে ঘটনা পরিবারকে খুলে বলে। বিষয়টি জানাজানি হলে ওই দুই কিশোর আত্মগোপনে চলে যায়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন